Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


November 23, 2018

Bangla Govt to open 2,631 customer service points for unbanked villages

Bangla Govt to open 2,631 customer service points for unbanked villages

To bring the far-flung villages of Bangla into the banking network, the State Government has decided to empower cooperatives in such villages to act as banks. These ‘banks’, which the government has decided to name as customer service points (CSP) would be under the State Cooperation Department, and not the Reserve Bank of India. Lakhs and lakhs of people would be benefitted as a result.

According to senior government officials, a decision has been taken to open 2,631 CSPs for now, for which purpose the Cooperation Department has allocated Rs 1,000 crore.

Work on the project has already started. About 2,000 cooperative societies have been identified for the purpose.

All the basic services provided by banks would be available at the CSP. Gradually, ATM services too would be provided by the CSPs. The State Government has planned to open the majority of the CSPs during the current financial year, that is, 2018-19.

Source: Bartaman


নভেম্বর ২৩, ২০১৮

রাজ্যে ২৬৩১টি কাস্টমার সার্ভিস পয়েন্ট খুলছে সমবায় দপ্তর

রাজ্যে ২৬৩১টি কাস্টমার সার্ভিস পয়েন্ট খুলছে সমবায় দপ্তর

রাজ্যের যে সমস্ত গ্রামে ব্যাঙ্কের কোনও শাখা নেই, সেখানে সমবায় সমিতিগুলিকে কার্যত ব্যাঙ্কের মর্যাদা দিচ্ছে সমবায় দপ্তর। তবে সেগুলি রিজার্ভ ব্যাঙ্কের অধীনে থাকবে না। এদের পোশাকি নাম দেওয়া হয়েছে কাস্টমার সার্ভিস পয়েন্ট বা সিএসপি। আপাতত রাজ্যে মোট ২৬৩১টি সিএসপি খোলা হবে।

এই ২৬৩১টি সিএসপি খোলার জন্য আপাতত সমবায় দপ্তর এক হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে। চলতি আর্থিক বছরের মধ্যেই যত বেশি সম্ভব সিএসপি খোলার দিকে নজর রাখা হয়েছে। প্রতিটি সিএসপিতেই কোর ব্যাঙ্কিং সিস্টেম করা হচ্ছে। তার জন্য পরিকাঠামো তৈরির কাজ শুরু করেছেন সমবায় দপ্তরের অফিসাররা।

রাজ্যের সমবায়মন্ত্রী বলেন, সাধারণ ব্যাঙ্কে যে ধরনের সুবিধা পাওয়া যায়, এখানেও তা পাওয়া যাবে। তবে এগুলি সবই সমবায় দপ্তরের নিয়ন্ত্রণে থাকবে। সমবায় ব্যাঙ্কের সঙ্গে এর কোনও সম্পর্ক নেই। অনেক গ্রামে ব্যাঙ্ক না থাকার কারণে গরিব মানুষ চরম সমস্যায় পড়েন। তাঁরা কৃষিঋণ নিতে পারেন না। এবার এখান থেকেই কৃষিঋণ বা কিষাণ ক্রেডিট কার্ড দেওয়া হবে। এতে গ্রাম বাংলার লক্ষ লক্ষ মানুষ উপকৃত হবেন।

এই সিএসপিগুলি চালু হয়ে গেলে গ্রামাঞ্চলের লক্ষ লক্ষ মানুষ উপকৃত হবেন