Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


November 26, 2018

Bangla Govt to explore tech use to prevent elephant deaths

Bangla Govt to explore tech use to prevent elephant deaths

The State Forest Department, in collaboration with the Indian Institute of Science, Bangalore, held a workshop at Chalsa in north Bengal on November 16 and 17 to explore technologies that can be adopted to prevent elephant deaths on railway tracks.

It was attended by scientists and experts on forest and wildlife across the country. Besides representatives of the Forest Department, senior officials of National Highway Authority of India (NHAI), the Railways and Wildlife Institute of India, and representatives of NGOs and local communities were present.

The workshop deliberated upon and showcased the various technologies available, and there are quite a few available currently. Among technologies that were discussed at length, three sensor based technologies – seismic, acoustic and infrared – were welcomed unanimously.

IIT Delhi has come up with a seismic sensor technology that gives a vibratory signal about elephants’ movements near rail tracks, once the sensors are fitted on to rail tracks. A message is sent to the nearest station master and the drivers of trains about to pass through the area, so that they remain alert.

Technologies involving CCTV surveillance and sending alerts through SMS to the train driver were also discussed deeply.

The death of pachyderms on rail tracks has been a major cause of concern across the country, including for the Bengal Forest Department. The spurt in death of elephants in recent times is mostly related to the change from a metre gauge track to a broad gauge track in 2003, along with the associated increase in the speed and number of trains.

Source: Millennium Post


নভেম্বর ২৬, ২০১৮

হাতির মৃত্যু এড়াতে প্রযুক্তির ব্যবহার রাজ্যের

হাতির মৃত্যু এড়াতে প্রযুক্তির ব্যবহার রাজ্যের

গত ১৬-১৭ই নভেম্বর বেঙ্গালুরুর ইন্ডিয়ান ইন্সটিটিউট অফ সায়েন্স এর সহযোগিতায় রাজ্য বন দপ্তর একটি কর্মশালার আয়োজন করে। হাতি মৃত্যু এড়াতে নতুন প্রযুক্তির ব্যবহার সংক্রান্ত এই কর্মশালাটি আয়োজিত হয় উত্তরবঙ্গের চালসায়।

সম্প্রতি, আইআইটি দিল্লী একটি নতুন সিসমিক সেন্সর আবিষ্কার করেছে যার মাধ্যমে রেল লাইনের আশেপাশে হাতির আনাগোনা হলে ভাইব্রেশন সিগ্নাল তৈরী হবে। এই যন্ত্র রেল লাইনের ওপর লাগানো হবে। এর মাধ্যমে স্থানীয় ষ্টেশন মাস্টার ও রেলের ড্রাইভার এই তথ্য জানতে পারবেন ও সতর্ক ভাবে ওই অঞ্চল দিয়ে ট্রেন চালাতে পারবেন। এছাড়া সিসিটিভির মাধ্যমে নজরদারি চালিয়ে এসএমএসএর মাধ্যমে ট্রেনের ড্রাইভারকে সতর্ক করার প্রযুক্তিও আছে।

এই সম্মেলনে এই সমস্ত প্রযুক্তির বিষয়ে আলোচনা করা হয়। বন দপ্তরের প্রতিনিধিরা ছাড়াও, জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ, রেল দপ্তর, ওয়াইল্ডলাইফ ইন্সটিটিউট অফ ইন্ডিয়া, বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধি ও স্থানীয়রাও উপস্থিত ছিলেন এই কর্মশালায়।

শিলিগুড়ি থেকে আলিপুরদুয়ারের মধ্যে বিস্তৃত রেলপথ প্রায় ১৬৫ কিলোমিটার দীর্ঘ। এই পথে পড়ে জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যান, মহানন্দা ওয়াইল্ডলাইফ স্যাঙ্কচুয়ারি, বক্সা টাইগার রিজার্ভ।

বন দপ্তরের প্রতিনিধিরা ছাড়াও, জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষ, রেল দপ্তর, ওয়াইল্ডলাইফ ইন্সটিটিউট অফ ইন্ডিয়া, বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার প্রতিনিধি ও স্থানীয়রাও উপস্থিত ছিলেন এই কর্মশালায়।