Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


November 26, 2018

New lightning alert system – direct SMS to people

New lightning alert system – direct SMS to people

The State Government is taking initiatives to ensure that lightning alert reaches common people directly at the grassroots level.

The State Disaster Management and Civil Defence Department had introduced a state-of-the-art technology, in collaboration with a US company, in early 2018 that predicts lightning and information gets disseminated 45 minutes before it strikes.

At present, the information gets disseminated among concerned officials of all ranks, including the district authorities, and representatives of gram panchayats. These officials in turn alert the people in their areas.

Now, in a bid to make the system more effective, the lightning alert messages would be sent directly to people’s mobile phones in the form of SMSes, giving them more time to get away from a place.

The messages have to be sent specifically only to those who reside in the block where there is possibility of lightning and the matter has been discussed in the meeting to find a way out. There will be further meetings in this connection.

It may be mentioned that introduction of the mechanism to generate an alert message 45 minutes before lightning strikes a particular area has helped to make many people become aware and get to safety in time. The new system would give them more time, and would lead to lesser and lesser deaths.

Source: Millennium Post


নভেম্বর ২৬, ২০১৮

বজ্রপাতের পূর্বাভাস দিতে নতুন উদ্যোগ প্রশাসনের

বজ্রপাতের পূর্বাভাস দিতে নতুন উদ্যোগ প্রশাসনের

রাজ্য সরকার উদ্যোগী হল যাতে বজ্রপাতের পূর্বাভাস সরাসরি সাধারন মানুষের কাছে পৌছনো যায়।

প্রসঙ্গত, বিপর্যয় ব্যবস্থাপনা দপ্তর ও অসামরিক প্রতিরক্ষা দপ্তর ২০১৮ সালে অত্যাধুনিক প্রযুক্তি নিয়ে এসেছিল যার মাধ্যমে বজ্রপাতের ৪৫মিনিট আগে তার পূর্বাভাস সাধারন মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া যায়।

এই মুহূর্তে, এই তথ্য জেলা কর্তৃপক্ষের কাছে এই তথ্য পৌঁছোয়। জেলায় জেলায় গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রতিনিধিরা এই পূর্বাভাস পান। তারা জনসাধারনের কাছে পৌঁছে দেন এই বার্তা।

এবার আরও নতুন পদ্ধতি আনা হচ্ছে যার ফলে সরাসরি তৃণমূল স্তরের মানুষ জানতে পারবেন এই পূর্বাভাস এবং নিরাপদ স্থানে পৌঁছতে পারেন।

রাজ্য সরকারের এক আধিকারিক পুরো ব্যবস্থা বর্ণনা করে বলেন, যে পদ্ধতি বর্তমানে আছে, তাতে বজ্রপাতের ৪৫ মিনিট আগে নির্দিষ্ট ব্লকে বিপদ সঙ্কেত পাঠানো হয়। এই পূর্বাভাস কিন্তু, নতুন পদ্ধতিতে এই পূর্বাভাস সরাসরি নির্দিষ্ট ব্লকের সকল সাধারন মানুষের কাছে পৌঁছে যাবে এসএমএস মারফৎ। এই নিয়ে কয়েকদিন আগেই বৈঠক হয়েছে সংশ্লিষ্ট সংস্থার সঙ্গে। আগামী দিনে আরও বৈঠক হবে।

২০১৬-১৭ সালে বজ্রাঘাতে প্রাণ হারিয়েছেন ২৯৪জন। এর ফলে বজ্রাঘাতে মৃত্যুর সংখ্যা অনেক কমবে।