Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


November 24, 2018

Leopard safari park in the Dooars

Leopard safari park in the Dooars

The State Government has decided to start a leopard safari at Khayerbari Leopard Rehabilitation Centre in Jaldapara National Park, over an area of 23 hectares.

It has also been decided to set up a deer park at the same place over an area of 4 hectares. There is a plan to set up a veterinary hospital too.

Currently there are seven leopards and a tiger at Khayerbari. Another injured leopard has been transferred here from Padmaja Naidu Zoological Park in Darjeeling.

Tourists would now be able to view these as part of a safari. The safari is expected to soon make it to the must-do lists of tourists coming to the Dooars.

Also on view at Khayerbari are four species of deer and other animals as well as birds from various countries.

Source: Aajkaal


নভেম্বর ২৪, ২০১৮

ডুয়ার্সেও তৈরী হবে লেপার্ড সাফারি পার্ক

ডুয়ার্সেও তৈরী হবে লেপার্ড সাফারি পার্ক

জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানের দক্ষিণ খয়েরবাড়ি ব্যাঘ্র পুনর্বাসন কেন্দ্রে লেপার্ড সাফারি চালু করতে চায় রাজ্য বন দপ্তর। ২৩ হেক্টর জমিতে হবে এই সাফারি। ইতিমধ্যেই সেন্ট্রাল জু অথরিটির কাছে সেই প্রস্তাব পাঠিয়েছে রাজ্য বন দপ্তর। সেখান থেকে অনুমোদন মিললেই এই লেপার্ড সাফারি পার্কে চালুর কাজ শুরু করা হবে।

এ ছাড়া জলদাপাড়া জাতীয় উদ্যানের খয়েরবাড়িতে একটি ডিয়ার পার্ক চালু করার সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে। ৪ হেক্টর জমির ওপর এই ডিয়ার পার্ক চালু করতে চায় বন দপ্তর। বনমন্ত্রী এই খবর জানিয়েছেন। ৪ হেক্টর জমিতে ডিয়ার পার্ক তৈরি করা হবে। ২৩ হেক্টর জমিতে দক্ষিণ খয়েরবাড়িতে লেপার্ড সাফারি তৈরী করা হবে। তার পরিকল্পনা চলছে। এ বিষয়ে মাপজোকের কাজও শেষ করেছে রাজ্য বন দপ্তর।

মাসখানেক আগেই দক্ষিণ খয়েরবাড়ি থেকে শচীন ও সৌরভ নামে দুটি চিতাবাঘকে শিলিগুড়ির বেঙ্গল সাফারিতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। দক্ষিণ খয়েরবাড়ি ব্যাঘ্র পুনর্বাসন কেন্দ্রে বর্তমানে ৭টি চিতাবাঘ ও একটি রয়্যাল বেঙ্গল টাইগার রয়েছে। সম্প্রতি দার্জিলিং পদ্মজা নাইডু হিমালয়ান জুলজিক্যাল পার্ক থেকে একটি চিতাবাঘকে জখম অবস্থায় খয়েরবাড়ি ব্যাঘ্র পুনর্বাসন কেন্দ্রে নিয়ে আসা হয়েছে।

লেপার্ড সাফারির পাশাপাশি খয়েরবাড়ি এসে পর্যটকেরা এখানে চার প্রজাতির হরিণ, দেশ–বিদেশের পাখি–সহ বিভিন্ন প্রজাতির পশুও দেখতে পাবেন। এ ছাড়াও সেখানে পশু–হাসপাতাল তৈরি করার চিন্তাভাবনাও করা হয়েছে বলে বনমন্ত্রী জানিয়েছেন।