Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


November 28, 2018

Bangla Govt focussing on organic farming, aromatic rice production

Bangla Govt focussing on organic farming, aromatic rice production

Radhatilak, Dudhsar, Kalabhat, Kalonuniya – these are some of the varieties of aromatic rice which are cultivated in Bangla. The State Agriculture Department is focussing on increasing their productivity. As of now, 17,807 hectares of land are used for organic farming. The department is planning to bring another 10,000 hectares under organic farming.

Apart from paddy, tea, flowers and fruits are cultivated using organic farming methods. For cultivating aromatic rice, organic fertilisers are necessary, as usage of chemical fertilisers will lead to loss of the aroma.

As per the agriculture department, in 2016-17, usage of chemical fertilisers plummeted significantly in the State. In the past, 190 kg of fertilisers were used per hectare. The amount has come down to 187 kg. Use of organic manures has increased from 1.5 metric tonne per hectare to 1.88 metric tonne per hectare. Use of organic manures will only facilitate the cultivation of aromatic rice.


নভেম্বর ২৮, ২০১৮

সুগন্ধী চালের চাষে জৈব সার ব্যবহারে জোর কৃষি দপ্তরের

সুগন্ধী চালের চাষে জৈব সার ব্যবহারে জোর কৃষি দপ্তরের

রাধাতিলক, দুধসর, কালাভাত, কালোনুনিয়ার মত সুগন্ধী চালের চাষ বাড়াতে রাজ্যে জৈব সারের আওতাধীন জমির পরিমাণ বাড়ানোর লক্ষ্যমাত্রা ধার্য করেছে কৃষি দপ্তর। রাজ্যে এখন ১৭,৮০৭ হেক্টর জমিতে জৈব সারে চাষ হয়। এই কৃষিবর্ষে আরও ১০ হাজার হেক্টর জমিকে জৈব সারের আওতায় আনার লক্ষ্য নেওয়া হয়েছে। ধান ছাড়াও জৈব সারে চা, ফুল, ফল হয়। সুগন্ধী চাল চাষের জন্য জৈব সার প্রয়োজন। অজৈব কিংবা রাসায়নিক সার ব্যবহার করলে চালের সুগন্ধ থাকে না।

রাজ্য সরকার ইতিমধ্যে সুগন্ধী চালের চাষ বাড়াতে উদ্যোগী হয়েছে। তার সঙ্গে তাল মেলাতেই জৈব সারের ব্যবহার বাড়াতে উদ্যোগী কৃষিমন্ত্রী। কৃষি দপ্তরের তথ্য বলছে, রাজ্যে ২০১৬-১৭ কৃষিবর্ষে রাসায়নিক সারের ব্যবহার চোখে পড়ার মতো কমানো হয়েছে। আগে প্রতি হেক্টরে ১৯০ কিলো সার প্রয়োগ করা হত। এখন তা কমে হয়েছে হেক্টর প্রতি ১৮৭ কিলো। সে জায়গায় জৈব সারের ব্যবহার বেড়েছে। আগে প্রতি হেক্টর জমিতে ১.৫০ মেট্রিক টন জৈব সার প্রয়োগ করা হত। এখন জৈব সারের পরিমাণ বেড়ে প্রতি হেক্টরে ১.৮৮ মেট্রিক টন হয়েছে। সুগন্ধী চালের চাষ বাড়াতেই রাজ্য সরকার পরিকল্পিত ভাবে চাষ জমিকে জৈব সারের আওতায় নিয়ে আসতে চাইছে।

সৌজন্যেঃ এই সময়