Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


January 13, 2019

Digha hosts three-day Folk Festival

Digha hosts three-day Folk Festival

The three-day Digha Folk Festival has been running from January 11. It will get over today. This is the second edition of the festival.

The festival is a place for exhibiting and selling handicrafts, and for the performance of folk performances. This year folk performances are being held from 6 PM to 8 PM.

Purba Medinipur, where Digha is located, is famous, along with Paschim Medinipur, for patachitra (storytelling through scroll painting) and madur weaving. And both have received the geographical indication (GI) tag.

Madur weavers from villages like Patashpur, Ramnagar, Bhagwanpur and Moyna, which are famous for the craft, have come to the Digha Folk Festival. Many of the artistes who have come are also taking part in workshops.

A few initiatives for folk artistes by the Bangla Government may be mentioned here. The 10 Rural Craft Hubs, developed by the State Micro, Small & Medium Enterprises and Textiles in association with the United National Educational, Scientific and Cultural Organisation (UNESCO), have benefitted 3,000 handicraft artistes. The setting up of Rural Craft and Cultural Hubs (RCCH) has benefitted an additional 12,000 rural artistes.

Then there is the Lok Prasar Prakalpa for folk performers. Now, over 2 lakh folk artistes get a monthly stipend from the government and the State Government has given them musical instruments. Folk artistes are invited for paid performances at the programmes organised the government departments and for the promotion of government schemes through their songs and dances.

Source: Millennium Post


জানুয়ারী ১৩, ২০১৯

দীঘায় অনুষ্ঠিত হল লোক উৎসব

দীঘায় অনুষ্ঠিত হল লোক উৎসব

দীঘায় অনুষ্ঠিত হল তিনদিনব্যাপী লোক উৎসব। ১১ই জানুয়ারি এই উৎসব শুরু হয়। আজ শেষ দিন। দ্বিতীয় বছরে পড়ল এই লোক উৎসব।

এই উৎসবে হস্তশিল্পের প্রদর্শনী করা হয়। কেনার ব্যবস্থাও ছিল। এছাড়া অনুষ্ঠিত হয় প্রতিদিন সন্ধ্যা ৬টা থেকে ৮টা পর্যন্ত লোকশিল্পীরা উপস্থাপন করেন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান।

পূর্ব এবং পশ্চিম মেদিনীপুর জেলাগুলি পটচিত্র এবং মাদুর শিল্পের জন্য বিখ্যাত। এই দুই শিল্পের জন্য জিআই ট্যাগও পেয়েছে রাজ্য। পটাশপুর, রামনগর, ভগবানপুর, ময়না থেকে মাদুর শিল্পীরা এই উৎসবে আসেন। এই শিল্পীদের অনেকেই কর্মশালায় অংশ নেন।

হস্তশিল্পীদের জন্য নেওয়া রাজ্য সরকার নানা উদ্যোগ নিয়েছে। ক্ষুদ্র, মাঝারি ও কুটির শিল্প এবং বস্ত্র দপ্তর ইউনেস্কোর সহযোগিতায় ১০টি গ্রামীণ শিল্প হাব তৈরী করেছে। এর ফলে ৩০ হাজার হস্তশিল্পী উপকৃত হয়েছেন। গ্রামীণ শিল্প ও সাংস্কৃতিক হাব তৈরী হওয়ার ফলে ১২,০০০ গ্রামীণ শিল্পী উপকৃত হয়েছেন।

এছাড়া লোকশিল্পীদের জন্য সরকার লোকপ্রসার প্রকল্প চালু হয়েছে। এই মুহূর্তে প্রায় ২ লক্ষ শিল্পী মাসিক ভাতা পান রাজ্য সরকারের কাছ থেকে। তারা সরকারের কাছ থেকে বাদ্যযন্ত্রও পেয়েছেন। সরকারের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ করার সুযোগও পান তারা এবং সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পের প্রচারও করেন তারা।