Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


January 14, 2019

State Govt releases Rs 1,600 cr for paddy procurement from farmers

State Govt releases Rs 1,600 cr for paddy procurement from farmers

The Bangla Government has released Rs 1,600 crore to give a momentum to paddy procurement, taking the total amount for the purpose to Rs 5,100 crore since November last year.

The move is to ensure that maximum farmers get the minimum support price (MSP) offered by the State. While the government’s MSP for paddy is Rs 1,770 per quintal, the market price is hovering between Rs 1,400 and Rs 1,450.

The target is to procure 50 lakh tonnes of paddy by September 2019, said a senior government official. However, the government wants to buy the maximum quantum of paddy by February to ensure that no small farmer goes for distress sale. This is the reason for the release of Rs 1,600 crore now.

The State Government has also decided to involve more self-help groups and cooperative societies in the process to ensure that farmers do not need to travel long distances to sell their produce.

Moreover, the state has decided to issue account payee cheques to the farmers on the spot when they will visit a procurement centre to sell their produce.


জানুয়ারী ১৪, ২০১৯

ধান সংগ্রহের জন্য রাজ্য সরকার দিল আরও ১৬০০ কোটি টাকা

ধান সংগ্রহের জন্য রাজ্য সরকার দিল আরও ১৬০০ কোটি টাকা

ধান সংগ্রহে জোর দিতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পরিচালিত রাজ্য সরকার আরও ১৬০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে। এই মিলিয়ে গত বছর নভেম্বর মাস থেকে রাজ্য সরকার এই খাতে ব্যয় করল মোট ৫১০০ কোটি টাকা। গত বছর এই সময় পর্যন্ত সরকার এই খাতে বরাদ্দ করেছিল ২০০০ কোটি টাকা।

এর ফলে রাজ্যের মোট ৭২ লক্ষ কৃষক পরিবারের মধ্যে অধিকাংশ কৃষক ন্যুনতম সহায়ক মূল্য পাবেন রাজ্য সরকারের তরফে। সরকারের এক উচ্চাধিকারিক বলেন, “আমাদের লক্ষ্য এই বছরের সেপ্টেম্বরের মধ্যে কৃষকদের থেকে ৫০ লক্ষ টন ধান সংগ্রহ করার। কিন্তু, সরকার চায় সিংহ ভাগ ধান ফেব্রুয়ারি মাসের মধ্যে সংগ্রহ করতে যাতে কোনও চাষিকে বাধ্য হয়ে সস্তায় ধান না বিক্রী করতে হয়। এই জন্য এই বিপুল পরিমাণ অর্থ বরাদ্দ করা হল। মরশুমের শুরুতেই যদি এই বিপুল অর্থ সরকার বরাদ্দ না করত, তাহলে পুরো প্রক্রিয়া সফল হত না। কারণ, মরশুমের শুরুতেই কৃষকদের অর্থের প্রয়োজন হয়।”

রাজ্য সরকারের বিভিন্ন কৃষিমুখী প্রকল্পের সুফল ইতিমধ্যেই দেখা গেছে রাজ্যের কৃষি ক্ষেত্রে। এই বছর এখন পর্যন্ত রাজ্য সরকার ধান সংগ্রহ করেছে ১৩.৫ লক্ষ টন, যা আগের বছরের এই সময় পর্যন্ত করা হয়েছিল ৬.৫ লক্ষ টন। এর পাশাপাশি সরকার অসংখ্য স্বনির্ভর গোষ্ঠী এবং সমবায় গোষ্ঠীকে নিযুক্ত করেছে ধান সংগ্রহ করে বিক্রয় কেন্দ্র পর্যন্ত পৌঁছে দেওয়ার জন্য। এর ফলে কৃষকদের দূরে গিয়ে ধান বিক্রী করতে হবে না।

এছাড়া, সরকার ধান বিক্রীর সময় কৃষকদের হাতে সরাসরি চেক হাতে তুলে দেবে ধানের দাম বাবদ। এতদিন পর্যন্ত কৃষকদের অ্যাকাউন্টে টাকা দেওয়া হত। কিন্তু, প্রত্যন্ত অঞ্চলে এই অর্থ পাঠানোয় কিছু সময় লাগত, তাই, এই নতুন পন্থা। তাছাড়া, এই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ফড়েদেরও রোখা সম্ভব হবে।