Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


May 25, 2018

Renovated Rabindranath Tagore Museum in Mungpoo inaugurated

Renovated Rabindranath Tagore Museum in Mungpoo inaugurated

On May 8, on the occasion of Rabindra Jayanti, that is, birth anniversary of Rabindranath Tagore, the renovated Rabindranath Tagore Museum in Mungpoo in Darjeeling was inaugurated. The programme was organised by the State Information and Cultural Affairs Department.

The museum was where the Nobel laureate stayed four times between 1938 and 1940, and hence is also known as Rabindranath Bhavan. It was one of the first places in the country to be established to pay homage to the bard, in 1944.

Rabindranath was very fond of hills, and kept coming back to his houses in the Hills region throughout his life. The reason he chose this as one of the places to stay was because it was the house of the writer Maitreyi Devi, the daughter of his good friend, Surendranath Dasgupta. Maitreyi Devi stayed here as she was married to the then director of the cinchona plantation. She also shared a special relation with Tagore. Detailed accounts of Tagore’s stays there can be read in the book she wrote, Mungpoo-te Rabindranath.

Tagore was also attracted by the soothing and quiet ambience, and by the beauty of the surrounding cinchona plantations.

People visiting the museum can see the place where Tagore used to eat and the bed and other things he used, like his chairs and the mahogany desk on which he wrote. Tagore penned about 12 poems here, including the famous poem ‘Janmadin’. In 1940, he also celebrated his birthday here, his second-last birthday, with the local people.

Source: The Statesman

Image Source: http://www.mungpoo.org/2015/05/rabindra-bhavan-at-mungpoo-to-get-restoration.html


মে ২৫, ২০১৮

১০৫ বছর পর খুলল মংপুর রবীন্দ্র স্মারক

১০৫ বছর পর খুলল মংপুর রবীন্দ্র স্মারক

অপেক্ষা শেষ৷ পর্যটকদের জন্য আবার খুলল মংপুতে রবীন্দ্রনাথের স্মৃতি বিজড়িত সংগ্রহশালার দরজা৷ গত ২৫ বৈশাখ, কবির জন্মদিনে মংপুতে রবীন্দ্র মিউজিয়াম ফের চালু করা হয়৷ রবীন্দ্রনাথ এখানে আসতেন মৈত্রেয়ী দেবীর বাসভবনে৷ সিঙ্কোনা প্ল্যানটেশনে চাকরি করার সূত্রে ওই বাসভবনটি পেয়েছিলেন মৈত্রেয়ী দেবীর স্বামী মনমোহন সেন৷ সিঙ্কোনা প্ল্যান্টেশনের ওয়ার্কশপ লাগোয়া যে বাড়িটি এখন মিউজিয়াম হিসাবে ব্যবহৃত হয়, সেখানেই রবীন্দ্রনাথের থাকার ব্যবস্থা হত৷

দীর্ঘদিন সংস্কারের অভাবে ভবনটি জরাজীর্ণ হয়ে পড়ে৷ গত বছর রাজ্য হেরিটেজ কমিশন ভবনটিকে স্বীকৃতি দেওয়ার পরে রাজ্য সরকার সংস্কারের জন্য প্রায় ৪৫ লক্ষ টাকা বরাদ্দ করে৷ পুরো ভবনটি নতুন করে রং করার পাশাপাশি ভিতরের মেঝের কাঠের পাটাতন নতুন করে তৈরী করা হয়েছে৷ প্রশাসনের পক্ষ থেকে মিউজিয়ামের একপাশে গেস্ট হাউস, ক্যান্টিন-সহ পর্যটকদের চাহিদা মাফিক নানা পরিকাঠামো গড়ে তোলা হচ্ছে৷

রবীন্দ্রনাথের ব্যবহার করা খাট, চিঠিপত্র লেখার চেয়ার টেবিল এখনও এই বাড়িটিতে রয়েছে৷ রবীন্দ্রনাথের কিছু পাণ্ড‌ুলিপিও আছে৷ তার আকর্ষণেই পাহাড়ে এসে বেশির ভাগ পর্যটক একবার মংপু ঘুরে যান৷ রবীন্দ্র মিউজিয়ামটি হেরিটেজ মর্যাদা পাওয়ায় রক্ষণাবেক্ষণে এ বার সুবিধা হবে৷

১৯৩৮ থেকে ১৯৪০-এর মধ্যে রবীন্দ্রনাথ বার বার মংপুতে এসেছেন৷ রবীন্দ্রনাথ তাঁর ‘জন্মদিন’ কবিতাটি এখানেই লেখেন৷