Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


May 9, 2018

Food fest in Nalban serving some of the tastiest fish dishes of Thakurbari heritage

Food fest in Nalban serving some of the tastiest fish dishes of Thakurbari heritage

A typical Bengali can hardly be kept apart from a daily helping of fish. The great poet and writer, and Nobel laureate Rabindranath Tagore was no different either. He was a well-known lover of fish, indeed of all good food.

Hence, on the occasion of his birth anniversary, better known as ‘Pochishe Baisakh’ (25th of Baisakh, his birthday according to the Bengali calendar), the State Fisheries Development Corporation (SFDC) is organising a fish festival at its restaurant in Nalban in Kolkata.

It started on May 8 and will continue till May 13. This year, Pochishe Baisakh falls on May 9. SFDC is a body under the aegis of the Bengal Government’s Fisheries Department.

The connection between Tagore and fish has been furthered by one of the sources for the dishes – Amish-o-Niramish Randhan, a culinary classic in Bengali by Prajnasundari Devi, a niece of Rabindranath Tagore, an expert chef herself, and whose cooked items were among Rabindranath’s favourites, as well as of many members of Thakurbari (the residents of Jorasankho Thakurbari). The other book from which dishes have been selected is Rannai Boi, another classic, by Leela Majumdar (better known as a children’s author) and Kamala Chattopadhyay.

History says that Thakurbari was a melting pot of cuisines from around the world, be they non-vegetarian or vegetarian. Going with that, the fish dishes selected for the festival also boast of a wide range of influences. Among them are ilisher dolon, bagda chingri bhate, bhetkir gravy cutlet, chingri puff, macher pie, grilled shole and several others.

So what are you waiting for? Head to Nalban before it’s too late and indulge your taste buds in some of the tastiest dishes in Bengali cuisine.

 


মে ৯, ২০১৮

ঠাকুরবাড়ির মেছো মেনুতে মৎস্য উন্নয়ন নিগমের রবীন্দ্র শ্রদ্ধায়

ঠাকুরবাড়ির মেছো মেনুতে মৎস্য উন্নয়ন নিগমের রবীন্দ্র শ্রদ্ধায়

ইতিহাস বলে, বাংলায় ভোজের আসরে প্রথম মেনুকার্ডের জন্ম হয়েছিল জোড়াসাঁকো ঠাকুরবাড়িতে রবিঠাকুরের ভাই হেমেন্দ্রনাথ ঠাকুরের মেয়ে প্রজ্ঞাসুন্দরী দেবীর হাতে। হেঁসেলের অন্দরেই তিনি খুঁজে নিয়েছিলেন সৃষ্টির আনন্দ। রন্ধনতত্বে তাঁর দক্ষতা ছিল নজিরবিহীন। তাঁর রান্না ছিল রবীন্দ্রনাথের খুব প্রিয়।

এবার বিশ্বকবির জন্মদিনে প্রজ্ঞাসুন্দরীর আবিষ্কৃত একগুচ্ছ মেছো মেনু বাঙালীকে উপহার দিতে চলেছে রাজ্য মৎস্য উন্নয়ন নিগম। আজ নলবন ফুড পার্কে শুরু হতে চলেছে রবীন্দ্র জন্মজয়ন্তীর বিশেষ খাওয়াদাওার উৎসব। মৎস্য নিগম শুধু প্রজ্ঞাসুন্দরীর নয়, লীলা মজুমদারের রান্নার বই থেকে বেশ কিছু পদও তৈরী করছে। এই উৎসব চলবে ১৩ই মে পর্যন্ত।

বাঙালির চেনা ছকের কিছুটা বাইরে গিয়েই তালিকা সাজানো হয়েছে। বাংলাদেশের বিশেষ রেসিপি ইলিশের দোলন, শোল সিলেট, ভেটকি মাছের গ্রেভি কাটলেট, চিংড়ি পাফ, বাগদা চিংড়ি ভাতে। পার্সে মাছের একচাকি বলে বিশেষ পদ পাওয়া যাবে পাশাপাশি পাওয়া যাবে পশ্চিমী ঘরানার আইটেমও। সব মিলিয়ে প্রায় ১৫ রকমের নতুন মাছের পদ নিয়ে হাজির থাকবে নিগম।

Source: Sangbad Pratidin