Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


May 28, 2018

Riding on the popularity of budget tourism, Benfish sees profit for the first time

Riding on the popularity of budget tourism, Benfish sees profit for the first time

Benfish, the State fishermen’s cooperative, has seen profits for the first time. This historic achievement has been made possible by the Trinamool Congress Government under Chief Minister Mamata Banerjee.

Benfish is the acronym for West Bengal State Fishermen’s Cooperative Federation Limited. It is run by the State Fisheries Department. A neglected organisation during the erstwhile Left Front era, the present Government has brought the organisation from red to black.

The major reason for profiting is the successful operating of the lodges under the organisation. These lodges are affordably priced, and their popularity is also directly linked to the encouraging of budget tourism, for which the Tourism and Transport Departments also play major roles.

Online booking has been introduced; hence booking slips are no longer required. On reaching a lodge, just showing the booking number sent on mobile phone is enough. Besides affordability, another reason for booking these lodges is the availability of tasty and healthy fish dishes, which is the speciality of Benfish.

Though budget hotels, the rooms are of very good quality. Then, the personnel running these lodges have been provided with special hospitality training.

According to the Fisheries Minister, the department has plans for opening more lodges.

Source: Khabar 365 Din


মে ২৮, ২০১৮

বাজেট ট্যুরিজমের হাত ধরেই রেকর্ড ব্যবসা বেনফিশের

বাজেট ট্যুরিজমের হাত ধরেই রেকর্ড ব্যবসা বেনফিশের

বিগত সরকারের আর্থিক অন্ধকারের ইতিহাস সরিয়ে রেখে ব্যবসার নিরিখে রেকর্ড গড়ল বেনফিশ। ‘বাজেট ট্যুরিজম’-এর হাত ধরে আর্থিক বছরে ২ কোটি টাকার ব্যবসা করতে সক্ষম হল বেনফিশ। মাছের ব্যবসা আকাশচুম্বী হয়েছে। রাজ্যজুড়ে ছড়িয়ে থাকা বেনফিশের ঝাঁ-চকচকে ট্যুরিস্ট লজগুলিতে এবার থেকে মোবাইল দেখালেই পাওয়া যাবে ঘর। প্রয়োজন পড়বে না কোনও বুকিং স্লিপের। অনলাইন বুকিং-এর মধ্যে দিয়ে মোবাইলে চলে আসবে বুকিং নম্বর। মোবাইলে সেই নম্বর দেখালেই ঘর মিলবে রাজ্যে বেনফিশের যে কোনও ট্যুরিস্ট লজে।

সঙ্গে থাকছে বেনফিশের এস সে বড়কর এক সুস্বাদু সব পদ, জা প্রতি মুহূর্তে টেক্কা দেয় বেসরকারি হোটেলগুলির সঙ্গে। লজগুলিতে পরিষেবা দেওয়ার ক্ষেত্রেও বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে হোটেলকর্মীদের। অতিথি আপ্যায়নেও নেই কোনও ত্রুটি।

সর্বোপরি বাজেট ট্যুরিজম যখন, তখন প্রতি লজে থাকার খরচ খুবই কম। বৈশাখে তাপদাহ যখন ক্রমশ বাড়ছে, তখন সুন্দরবন, ফ্রেজারগঞ্জ, কাকদ্বীপ, মুর্শিদাবাদ, দীঘা ও পুরীতে বুকিং পেতে অনলাইনেও লাইন দিতে হচ্ছে বেশ কিছুদিন ধরে। কোচবিহার, দার্জিলিং থেকে ডুয়ার্সের ট্যুরিস্ট লজ এই মুহূর্তে হাউস-ফুল।মধ্যবিত্তের বাজেটের মধ্যে থাকছে ট্যুরিস্ট লজের খরচ। তাই, বাজেট ট্যুরিজমকেই অত্যাধুনিক প্যাকেজে মুড়ে পর্যটকদের কাছে তুলে ধরতে উদ্যোগী হয়েছে বেনফিশ।

 

মৎস্যমন্ত্রী বলেন, ‘আমাদের সরকার আক্ষরিক অর্থেই মা-মাটি-মানুষের পাশে রয়েছে। যারাই আসবেন, প্রত্যেকের জন্য থাকছে অত্যাধুনিক রূম। একই সঙ্গে থাকছে খাদ্যের সমাহার।’ রাজ্য মৎস্য উন্নয়ন নিগমের ম্যানেজিং ডিরেক্টর বলেন, ‘আতিথেয়তাই আমাদের কাছে শেষ কথা। বাজেট ট্যুরিজমের ওপর নির্ভর করেও আমরা ব্যবসার ক্ষেত্রে এই রেকর্ড গড়তে সক্ষম হয়েছি। বেনফিশ তার প্রকৃত গরিমা ফিরে পেয়েছে।’

প্রসঙ্গত, আরও নতুন জায়গা খুঁজে বার করা হচ্ছে বেনফিশের ট্যুরিস্ট লজ গড়ে তোলার জন্য। অন্যদিকে বেনফিশ তার নিজের খাদ্যের সমাহার নতুন কোরে সাজিয়ে তুলছে তাদের ট্যুরিস্ট লজগুলির জন্য।