Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


May 21, 2018

Bengal CM writes to the PM to allow for CSR in Chief Minister’s Relief Funds

Bengal CM writes to the PM to allow for CSR in Chief Minister’s Relief Funds

Chief Minister Mamata Banerjee has written to the Prime Minister to allow business houses to contribute money for corporate social responsibility (CSR) activities to Chief Minister’s Relief Funds (CMRF).

The letter points out ‘one major infirmity in the present CSR framework as provided in the Companies Act 2013’ concerning the interest of the States. While contributions to the Prime Minister’s National Relief Fund (PMNRF) was mentioned as an eligible activity under CSR in the 2013 Act, the same made to CMRFs was not considered as an activity ‘eligible for contribution under the CSR’, as per the letter.

Hence, the letter reads, ‘it will indeed be praiseworthy if contribution to CMRF in the states is also made an eligible activity under CSR. The little contribution would be very helpful to all the states to extend the much-desired assistance and relief to people in need.’

Mamata Banerjee has written that the CMRFs are always under financial constraints because of limited donations from companies, and also that, if the proposal is accepted by the Centre, the contributions will also enable the donors to claim tax breaks.

 

Source: Millennium Post


মে ২১, ২০১৮

অনুদান সামাজিক দায়বদ্ধতা হিসেবে দেখানো হোক, দাবি মুখ্যমন্ত্রীর

অনুদান সামাজিক দায়বদ্ধতা হিসেবে দেখানো হোক, দাবি মুখ্যমন্ত্রীর

মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে কর্পোরেট সংস্থার দানকে আয়করের ছাড় দেওয়া হোক, এই আর্জি জানিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর দাবি, বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানগুলির দেনকে সামাজিক দায়বদ্ধতা বাবদ ধরা হোক, তাতে সংস্থাগুলি বেশি করে অনুদান দিতে আগ্রহী হবে এবং এর ফলে সামাজিক নানা ক্ষেত্রে কাজের সুবিধা হবে।

উল্লেখ্য, প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে কর্পোরেট সংস্থাগুলি টাকা দিলে তা সামাজিক দায়বদ্ধতা হিসেবেই ধরা হয়ে থাকে, ২০১৩ সালের আইন মেনেই তা করা হয়. কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে টাকা দিলে তা করমুক্ত হিসেবে ধরা হয় না – এই বিষয়টি উল্লেখ করে চিঠি লিখেছেন মুখ্যমন্ত্রী।

মুখ্যমন্ত্রী লিখেছেন, প্রতিটি রাজ্যে মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। অধিকাংশ ক্ষেত্রে গরিব মানুষের প্রয়োজনে সেই টাকা ব্যয় হয়, ছোট ছোট অঙ্কের অনুদানও অনেক কাজে লাগে, তাই বিষয়টি যেন মানবিক দিক দিয়ে দেখা হয়. কর ছাড় পেলে কর্পোরেট সংস্থাগুলি আরো বেশি করে এই খাতে টাকা দিতে উৎসাহী হবে।

মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলের টাকা থেকে শিক্ষা বা চিকিৎসার মতো খরচ দেওয়া হয়ে থাকে, যার ফলে উপকৃত হন বহু মানুষ। “সহায়তার জন্য সব মানুষের আর্জি মেটানো সম্ভব হচ্ছে না” চিঠিতে একথাই জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।

Source: Millennium Post