Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


May 28, 2018

Muslin gaining popularity at Biswa Bangla stores

Muslin gaining popularity at Biswa Bangla stores

Due to the sustained effort of Chief Minister Mamata Banerjee and her Trinamool Congress Government, muslin is gaining popularity again. This is evident from the fact that the sale of muslin products at Biswa Bangla outlets – in Bengal and Delhi – has been rising steadily.

Having its origin in Dhaka, and hence called ‘Dhakai muslin’ in Bengali, the fabric is the pride of Bengal, when it comes to handmade fabrics. Muslin is made from the finest cotton, weaved into a glossy and a very light fabric, and hence an embodiment of royalty and luxury.

The muslin products sold through Biswa Bangla outlets are in high demand – sarees, handkerchiefs and jewellery for women, and shirts for men. The glossy jewellery and sarees are quick attraction-grabbers for the eyes of customers.

After coming to power in 2011, Mamata Banerjee had taken a special initiative to organise the weavers of muslin. There are around 300 families who are associated with the production of muslin sarees. They have been given training by experts to bring their designs and production techniques up-to-date and a Muslin Hub has come up in the district of Nadia, the traditional centre for muslin in the State. An exclusive outlet named Club Muslin has also been opened at the Dakshinapan shopping complex in Kolkata.

In keeping with the times, along with sarees, the weavers are also manufacturing kurta, pyjama, kurti, handkerchief, bed linen and costume jewellery. Kurta, pyjama and kurti are available in different colours.

Source: Millennium Post


মে ২৮, ২০১৮

বিশ্ব বাংলার দৌলতে আবারও জনপ্রিয় হচ্ছে মসলিন

বিশ্ব বাংলার দৌলতে আবারও জনপ্রিয় হচ্ছে মসলিন

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় আবারও জনপ্রিয় হচ্ছে মসলিন। দিল্লী ও বাংলায় অবস্থিত বিশ্ব বাংলার বিপণীগুলিতে হুহু করে বেড়ে চলেছে মসলিনের চাহিদা।

উৎপত্তি ঢাকায় হলেও, সারা বাংলার গর্ব এই মসলিন। খুব ভালো মানের তুলো থেকে মসলিন তৈরী করা হয়। আভিজাত্যের প্রতীক হিসেবে গণ্য করা হয় মসলিনকে।

বিশ্ব বাংলার বিপণীতে খুব চাহিদা এই সব মসলিনের কাপড়ের। শাড়ি, রুমাল, ছেলেদের শার্ট – রকমারি সম্ভার এই বিপণিগুলিতে। এমনকি মেয়েদের গহনারও খুব চাহিদা। এর পাশাপাশি মসলিন শিল্পীরা বিভিন্ন রঙের কুর্তা, পাজামা, কুর্তি, বিছানার চাদরও তৈরী করছে।

২০১১তে ক্ষমতায় আসার পর রাজ্য সরকার মসলিন শিল্পীদের উন্নয়নের জন্য চালু করেছেন নানা প্রকল্প। আনুমানিক ৩০০ পরিবার এই শিল্পের সাথে যুক্ত। তাদের বিশেষজ্ঞদের মাধ্যমে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। নদীয়াতে একটি মসলিন হাব তৈরী করা হয়েছে। কলকাতার দক্ষিণাপন শপিং সেন্টারে ‘ক্লাব মসলিন’ নামে একটি বিপণী কেন্দ্র খোলা হয়েছে।