Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


May 25, 2018

Bengal’s first AC battery-powered buses running in New Town

Bengal’s first AC battery-powered buses running in New Town

In yet another step towards turning New Town into a green city, the Bengal Government has recently introduced air-conditioned battery-powered buses in the area. This is a first for the State. Three buses are plying in Action Area I and Action Area II and have already completed 3,000 rides. The buses are following a circular route.

These buses are covering routes which have not been covered by other buses yet. The fare for the buses is Rs 10. Like in several other countries, the buses do not have conductors; the drivers collect the fares. For their new way of functioning, the drivers were given training before the buses were introduced.

Proper signage has been put up for passengers. Stations have been set up where batteries can be recharged. The average speed of the buses varies from 40 to 50 km per hour.

There are plans to also introduce electric vehicles in New Town. This will further bring down air pollution.

Source: Millennium Post


মে ২৫, ২০১৮

নিউটাউনে চালু হল রাজ্যের প্রথম ইলেকট্রিক বাস পরিষেবা

নিউটাউনে চালু হল রাজ্যের প্রথম ইলেকট্রিক বাস পরিষেবা

কলকাতায় চালু হল ইলেক্ট্রিক বাস। এই বাস পরিষেবা চালু করেছে হিডকো। দূষণহীন এই বাস গত ২রা মে মহানগরের বুকে যাত্রা শুরু করল নিউটাউন থেকে। প্রারম্ভিক ভাবে এ দিন তিনটি বাসকে রাস্তায় নামান হয়।

রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী জানিয়েছেন, পশ্চিমবঙ্গের জন্য ৪০টি এ ধরনের ইলেকট্রিক বাস বরাদ্দ করা হয়েছে। ভবিষ্যতে এই সংখ্যাটি বাড়ানোর যাবতীয় উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।

দূষণ কমানোর জন্যই এই উদ্যোগ রাজ্য পরিবহন দপ্তরের। তারা এই বাসের নাম দিয়েছে ‘ইলেকট্রিক বাস’। বাসগুলিতে রিচার্জেবল ব্যাটারি থাকবে। সেই ব্যাটারির বিদ্যুতেই চলবে বাস ।

জানা গিয়েছে, বিদ্যুত্‍চালিত এই দূষণহীন বাসগুলিকে এক বার চার্জ করলে টানা ১৫০ কিমি চলবে অন্য কোনো জ্বালানি ব্যতিরেকেই। এগুলিকে আপাতত রাজারহাট এবং বিধাননগর ডিপোয় রাখার কথা চিন্তাভাবনা করেছেন কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি চার্জ দেওয়ার জন্যও তৈরি করা হয়েছে চার্জিং স্টেশন। এই চার্জিং স্টেশনগুলির আরও একটি সুবিধাজনক দিক হলো, অন্যান্য ব্যাটারি চালিত যানও এই স্টেশন থেকে নির্ধারিত মূল্যে চার্জ করাতে পারবে।

হিজকো সূত্রে জানা গিয়েছে, এই বাসগুলিতে ভাড়ার কোনো স্তর নেই। বাসে উঠলেই দশ টাকা খরচ করতে হবে। এর পর আর থাকবে না কোনো দূরত্বের প্রশ্ন। এমনকী, এই বাসে থাকছে না কোনো কন্ডাক্টরও। চালক নিজেই যাত্রীদের কাছ থেকে ভাড়া সংগ্রহ করবেন।

বাসে রয়েছে একটিই গেট। যা স্বয়ংক্রিয় পদ্ধতিতে খোলা এবং বন্ধ হবে। তবে টিকিট না কাটলে দরজা খোলার কোনো সম্ভাবনা থাকছে না বাতানুকুল বাসে।