Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


May 14, 2018

Statement by All India Trinamool Congress on the Panchayat election

Statement by All India Trinamool Congress on the Panchayat election

People have exercised their rights in polling stations today. A few isolated incidents have taken place, however, which All India Trinamool Congress neither wanted nor supported. The administration today helped the Election Commission and nobody got involved in any instigation.

A few of our supporters were badly injured. But, across the length and breadth of the State, our supporters were the model of tolerance.

The allegation made against us regarding the incident in Kakdwip is untrue. At no time is death welcome. So, be it any party, death of a worker is always a sad event.

The BJP is involved in a dirty game. The way it brought in people from Bangladesh, Assam and Jharkhand to create trouble in border regions is extremely reprehensible and in this, it has indirectly taken the help of the BSF, which is under the control of the Central Government. It was shown on TV how BSF personnel were trying to influence voters standing in queues for casting votes.

Law and order is a State subject, as per our Constitution. Hence, we have written to the Election Commission to investigate how the BSF engaged in these activities without any permission from the State Government.

 


মে ১৪, ২০১৮

সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বিবৃতি

সর্বভারতীয় তৃণমূল কংগ্রেসের পক্ষ থেকে বিবৃতি

মানুষ নিজেদের ভোটকেন্দ্রে গিয়ে তাদের অধিকার প্রয়োগ করতে পেরেছেন। কিন্তু বিক্ষিপ্ত কয়েকটি ঘটনা ঘটেছে যা তৃণমূল কংগ্রেস দল হিসেবে কখনো চায় না এবং সমর্থন করে না । প্রশাসন আজ নির্বাচন কমিশনকে সাহায্য করেছেন, কেউ কোন প্ররোচনায় পা দেয়নি।

আমাদের কয়েকজন কর্মী রক্তাক্ত হয়েছে। রাজ্যব্যাপী সর্বত্র তারা সহনশীলতার পরিচয় দিয়েছে।

কাকদ্বীপে তৃণমূল কংগ্রেসকে যে অভিযোগ করা হচ্ছে তা অসত্য। কোন মৃত্যুই কোন সময় বাঞ্ছনীয় নয়। তাই মৃত্যু যে দলের কর্মীরই হোক তা দুঃখের।

বিজেপি নোংরা খেলায় মেতেছে। বাংলাদেশ, আসাম, ঝাড়খণ্ড থেকে সমর্থকদের নিয়ে এসে সীমান্তবর্তী এলাকায় তাদের ব্যবহার করেছে যা অত্যন্ত নিন্দনীয় এবং প্রত্যক্ষভাবে কেন্দ্রীয় সরকারের নিয়গকর্তা বি এস এফ কে কাজে লাগানো হয়েছে। টিভি তে দেখা যাচ্ছে বি এস এফের কর্মীরা লাইনে দাঁড়িয়ে থাকা ভোটারদের প্রভাবিত করার চেষ্টা করছে। আইন শৃঙ্খলা রাজ্যের বিষয়। তা সত্ত্বেও কোন অনুমোদন না নিয়ে কার নির্দেশে এখানে বি এস এফ নিয়োজিত হল, এ ব্যাপারে আমরা নির্বাচন কমিশনকে চিঠি দিয়েছি।