Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


July 3, 2018

More pre-delivery Waiting Huts to be set up by the State Govt

More pre-delivery Waiting Huts to be set up by the State Govt

In order to provide adequate services to enable more institutional deliveries, the Bengal Government has decided to set up more Waiting Huts.

These clinics, with adequate numbers of doctors and nurses round-the-clock, and all necessary equipment, are set up in remote areas, from where access to hospitals is difficult. It is a pioneering concept in the country which the Central Government has accepted as a model and will implement in other parts.

Waiting Huts have been successful in reducing maternal deaths as from seven to 10 days before delivery, mothers can be admitted here. All the required nutritious food is also provided. Mother and child are under the constant attention of doctors and trained nurses.

When they are sent home, in the care of a family member(s), all required information is provided regarding the care of the mother and child, including on vaccination.


জুলাই ৩, ২০১৮

প্রসূতি মহিলাদের জন্য প্রত্যন্ত অঞ্চলে ওয়েটিং হাট রাজ্যে

প্রসূতি মহিলাদের জন্য প্রত্যন্ত অঞ্চলে ওয়েটিং হাট রাজ্যে

প্রসূতি মহিলাদের প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিনামূল্যে ভালো চিকিৎসা প্রদান করতে রাজ্য সরকার আরও ওয়েটিং হাট তৈরী করবে। এই প্রকল্প প্রথম চালু করে রাজ্য সরকার, পরবর্তীতে এই ওয়েটিং হাটগুলিকে জাতীয় মডেল আখ্যা দেয় কেন্দ্রীয় সরকার।

এই প্রকল্পের সাফল্যকে নজরে রেখে রাজ্যের স্বাস্থ্য দপ্তর প্রত্যন্ত অঞ্চলে আরও ওয়েটিং হাট খুলছে। যেসকল প্রসূতিরা প্রত্যন্ত অঞ্চলে থাকেন, তারা অনেক সময় জেলা হাসপাতালে পৌঁছতে অসুবিধা ভোগ করেন। তাদের জন্য এই ওয়েটিং হাট খুব উপকারী। এই উদ্যোগ প্রথম শুরু হয় মুখ্যমন্ত্রীর নির্দেশে। প্রত্যন্ত অঞ্চলে প্রাতিষ্ঠানিক প্রসবের হার সাহায্য করেছে এই উদ্যোগ। প্রকল্পটি মূলত শুরু করা হয়েছিল নদীকেন্দ্রিক জেলা দক্ষিণ ২৪ পরগণার কথা মাথায় রেখে।

এই প্রকল্পের অন্যতম উদ্দেশ্য ছিল শিশু মৃত্যুর হার ও প্রসবের আগে বা পরে মায়েদের মৃত্যুর হার কমানো। অনেক ক্ষেত্রে প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে হাসপাতালে আসার গাড়ি ভাড়া জোগাড় করা সম্ভব হয় না অনেক পরিবারের পক্ষে।

এই হাটগুলিতে প্রসূতিদের ৭ থেকে ১০ দিন রাখার মতো ব্যবস্থা রয়েছে। তাদের বিনামূল্যে দেওয়া হয় পুষ্টিকর খাবার।