Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


December 6, 2018

Fish production on the rise in Bangla

Fish production on the rise in Bangla

While answering a question on fish production in the Assembly on November 22, Chief Minister Mamata Banerjee said the overall production in the State was 17.42 lakh metric tonnes last year.

The State Fisheries Department has also prepared a roadmap for increasing the production of fishes in the next couple of years. A committee comprising seven to eight departments has been set up for the purpose. The plan is to make Bengal self-sufficient in fish production.

Under the Jal Dharo Jal Bharo Scheme, 2.5 lakh ponds have been dug to encourage pisciculture. Further, she said, initiatives have been taken to produce big fish, which take two years to grow, in 700 ponds. Unused waterbodies are being utilised for pisciculture.

A pisciculture research centre has been set up for further development of the sector. Initiatives have also been taken for production of hilsa in the state itself, she added.

Source: Millennium Post


ডিসেম্বর ৬, ২০১৮

রাজ্যে বেড়েছে‌ মাছের উৎপাদন

রাজ্যে বেড়েছে‌ মাছের উৎপাদন

রাজ্যে মাছের উৎপাদন বেড়েছে। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিধানসভায় একথা বলেন। তিনি বলেন, ‘‌আগে ছিল ১১ লক্ষ মেট্রিক টন। এখন আরও ৭ লক্ষ মেট্রিক টন বেড়েছে। বাঙালি মাছে–‌ভাতেই থাকে। যেমন দুধে–‌ভাতে বাংলা থাকে। এগুলো ছোটবেলায় শুনেছি।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “মাছের উৎপাদন নিয়ে আমরা পর্যালোচনা করি। এখনও আমাদের রাজ্যে অন্ধ্রপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ থেকে মাছ আসে। একটি উচ্চ পর্যায়ের এগ্রি মার্কেটিং কমিটি রয়েছে। সেখানে মাছ, ধান, আলু সব কিছু নিয়েই আলোচনা হয়। কমিটিতে ৭টি দপ্তরের মন্ত্রীরা রয়েছেন। মুখ্যসচিব, স্বরাষ্ট্রসচিবও রয়েছেন। এখন আমাদের রাজ্যের জলাশয়গুলিতে প্রচুর মাছ চাষ হচ্ছে।”

মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, ‘‌আমাদের রাজ্যে ইলিশ মাছ ছিল না। আমরা ইলিশ গবেষণা কেন্দ্র করেছি। কোলাঘাট–‌সহ কয়েকটি জায়াগা থেকে ইলিশ আসে। জল ধরো জল ভরো প্রকল্পে যে পুকুরগুলি কাটা হয়েছে, সেগুলিতে মাছ চাষ হচ্ছে। মৎস্যচাষীদের জীবনজীবিকা নির্ভর করে মাছ চাষের ওপর। ছোট মাছ, পোল্ট্রির ওপরেও গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। বিনামূল্যে হাঁসের ছানা দেওয়া হচ্ছে।’‌

মৎস্যমন্ত্রী বলেন, “আমরা মৎস্যজীবীদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছি, যে জেলায় যে মাছ বিখ্যাত, সেগুলি চাষ শুরু হয়ে গেছে। খালবিল উৎসবও হচ্ছে। বারেন্দ্রপুরে মৎস্য ব্যবসায়ী কেন্দ্র আছে। সেখান থেকে অনেক মাছ অন্ধ্রে যায়।”