Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


December 23, 2018

Kolkata Police to ensure peaceful year-end festive season

Kolkata Police to ensure peaceful year-end festive season

Kolkata Police has made elaborate arrangements for the upcoming festive season in and around the Park Street area. The police wants to ensure that people get to enjoy Christmas and New Year festivities safely and peacefully.

Several roads will be made ‘No Entry’ from 4 PM everyday till the New Year’s eve, commencing from December 25. Traffic movement between Wood Street and JL Nehru Road, Mayo Road from Gandhi Statue towards JL Nehru Road, Middleton Street, Russell Street, Little Russel Street and Camac Street (from Park Street to Middleton Street) will be restricted.

The night clubs, bars and hotels will be kept under strict vigil. Police personnel in uniform and plain clothes will monitor the shopping malls and Metro stations across the city.

Twenty-one divisional (one from each police division) mobile vans will be patrolling the city round-the-clock. Apart from this, 13 Quick Response Team (QRT) and 14 Heavy Radio Flying Squad (HRFS) vans will be posted at strategic points in the city to prevent any untoward incident.

To maintain law and order, the whole of Park Street area has been divided into seven zones. Ten senior police officials of the Deputy Commissioner (DC) rank will be posted at Park Street, who would supervise the force from time to time.

The Kolkata Police’s scooter-borne team of female officers, called ‘Winners’ would be doing the rounds of the city to watch out for eve-teasers. Twenty-five such teams would be deployed, with a higher concentration on Park Street and its surrounding areas.

Eleven watchtowers have been installed in and around Park Street. During the festival days, a Detective Department (DD) team, police personnel in plain clothes and an ARS team will be posted for checking drunken driving.

Apart from the security arrangement, 16 police assistance booths will be there to assist people.

The Disaster Management Group (DMG) team will also be on standby, in case of urgent intervention.


ডিসেম্বর ২৩, ২০১৮

বড়দিন থেকে নববর্ষ রাতভর টহল স্কুটিবাহিনীর

বড়দিন থেকে নববর্ষ রাতভর টহল স্কুটিবাহিনীর

বড়দিন আর নববর্ষের রাতে ভিড়ের মধ্যে সুযোগ পেলেই ইভটিজিংয়ের চেষ্টা৷ এই বছর সেই চেষ্টা করলেই বিপদ৷ কারণ, এবার বড়দিন থেকেই তৈরী রয়েছে কলকাতা পুলিশের ‘টিম উইনার্স”| গত কয়েক মাস ধরেই উল্লেখযোগ্যভাবে রাস্তায় ইভটিজার ও শ্লীলতাহানির অভিযুক্তদের ধরেছে মহিলা পুলিশের বিশেষ বাইক বাহিনী উইনার্স”৷ গত পুজোর সময় শহরের বহু জায়গা থেকে ইভটিজারদের কবজা করেছিল ‘উইনার্স’রা৷ এবার তাদের দেখা যাবে পার্ক ষ্ট্রীট ও তার সংলগ্ন এলাকায়৷ এই বিষয়ে ডিসি (সাউথ) বলেন, ‘উইনার্স”-এর ২৫ জনের টিম বড়দিনের আগে থেকেই তৈরী রয়েছে৷ সারা রাত ধরে টহল দিয়ে মহিলাদের সম্মান বাঁচাবেন পুলিশের এই মহিলারাই৷

এবার উইক এন্ডের পর বড়দিন| তাই বড়দিনের দিন দু’য়েক আগে থেকেই পার্ক ষ্ট্রীট, শেক্সপিয়র সরণির রাস্তায় জমে উঠবে ভিড়৷ এ ছাড়াও ক্রিসমাসের কেনাকাটার ভিড় জমতে শুরু করেছে রাস্তায়৷ পুলিশ জানিয়েছে, বড়দিন থেকে শুরু করে নববর্ষ পর্যন্ত পার্ক ষ্ট্রীট এলাকায় ভিড়ের মধ্যে ইভটিজিং ও শ্লীলতাহানির প্রবণতা থাকে কিছু যুবকের৷ আবার রাতে পার্ক ষ্ট্রীট বা শেক্সপিয়র সরণির পানশালার মধ্যে অথবা পানশালা থেকে মদ্যপ অবস্থায় বেরিয়ে অনেকে মহিলাদের কটুক্তি করে৷ অনেক সময় তা নিয়ে মারপিটও বেধে যায়! আইন- শৃঙ্খলাজনিত সমস্যা দেখা যায়৷ এই বছর এই ধরনের সমস্যা রুখতে এগিয়ে এসেছেন ‘উইনার্স’রা৷ সকাল থেকেই মহিলা পুলিশের এই বাহিনীর সদস্যারা স্কুটি করে শহরজুড়ে ঘুরে বেড়ান৷ পুলিশের সূত্র জানিয়েছে, বড়দিনের আগে থেকে ‘উইনার্স”-এর টিম বেশী গুরুত্ব দিচ্ছে পার্ক স্টিটের উপর!

পার্ক ষ্ট্রীটের রাস্তাগুলিতে স্কুটি নিয়েই টহল দিতে শুরু করেছেন ‘উইনার্স’রা | ক্রিসমাস ইভ, বড়দিন বা ৩১ ডিসেম্বর রাতে পার্ক ষ্ট্রীটের বহু জায়গায় মানুষের ভিড়ে গাড়ি চলাচল করতে পারে না৷ সেই ক্ষেত্রে স্কুটি ছেড়ে ইেটেই টহল দেবেন ‘উইনার্স’-এর সদস্যারা৷ তাদের নজর থাকবে ভিড়ের দিকে | ভিড়ের মধ্যে ইভটিজিংয়ের গুরুত্ব দিচ্ছে পার্ক ষ্ট্রীটের উপর৷ জানা গিয়েছে, মহিলা পুলিশের এই বাহিনীকে বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে ৷

তারা যেমন শহরজুড়ে স্কুটি চালিয়ে ঘুরতে পারেন, তেমনই তারা দৌড়ে অপরাধী ধরা ও কেউ পালানোর চেষ্টা করলে ক্যারাটের প্যাচে তাকে ধরাশায়ী করার দক্ষতা রাখেন৷ প্রয়োজনে যে দৌড়ে কলার ধরে ইভটিজারদের তারা ধরে নিয়ে আসতে পারেন, সেই প্রমাণও বহুবার পেয়েছে কলকাতা ৷ বিশেষ করে ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল, ময়দান চত্বরে বহুবার ‘উইনার্স’দের হাতে ধরা পড়েছে ইভটিজাররা ৷ শীতের ছুটিতেও চিড়িয়াখানা, ভিক্টোরিয়া মেমোরিয়াল- সহ যে জায়গাগুলিতে মানুষের ভিড় হয়, সেখানে সকাল থেকেই হাজির হন ‘উইনার্স’রা ৷ বড়দিন ও নববর্ষে সারারাত তারা মহিলাদের ইভটিজিং ও ক্লীলতাহানির হাত থেকে বাঁচাবেন বলে জানিয়েছে পুলিশ৷