Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


December 11, 2018

Bangla again a topper in combating cybercrime

Bangla again a topper in combating cybercrime

The police in Bangla have had steady success in fighting cybercrime. This year too, the prestigious DSCI Excellence Award for Cyber Security Education, popularly known as the India Cybercop Award, has been won by officers and organisations from the State. The awards were presented at a ceremony on December 5.

A cybercrime investigator from the Cybercrime Police Station of Kolkata Police (KP) has won the award for individual excellence, the ‘India Cyber Cop of the Year’ award. Another police officer from Bangla, from the detective department of Barrackpore Police Commissionerate, was one of the three finalists.

For the ‘Excellence in Capacity Building of Law Enforcement Agencies’ award, Kolkata Police was one of the three finalists.

There is extremely tough competition for these awards, as police officers and organisations from across the country, including from the CBI and NIA, take part. The juries comprise of some of the best police officers and advocates from the country.

A range of factors are considered for giving the awards, including what impact a particular crime has had on society and the importance of the investigation for the security of the country. Also considered are whether the perpetrators have been awarded and whether the case has gone to court.

Bangla has had a good history at the DSCI Excellence Award. For the India Cyber Cop of the Year award, a KP officer was the winner in 2014 and officers from the CID (West Bengal Police) and KP were finalists in 2017 and 2013, respectively. In the category of best law enforcement agency, Kolkata Police was a finalist in 2017 and 2015. The awards were instituted in 2011.


ডিসেম্বর ১১, ২০১৮

সাইবার অপরাধ দমনে ভারতের সেরা বাংলা

সাইবার অপরাধ দমনে ভারতের সেরা বাংলা

ফের রাজ্যের মাথায় শ্রেষ্ঠত্বের শিরোপা। সাইবার অপরাধ দমনে কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলির সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নেমে জয় ছিনিয়ে আনলেন কলকাতা পুলিস আধিকারিক অক্ষয় সাহা এবং ব্যারাকপুর পুলিস কমিশনারেটের আধিকারিক অনুপম চক্রবর্তী।

ব্যক্তিগতভাবে তদন্তকারী হিসেবে প্রথম হয়েছেন অক্ষয়। অন্যদিকে অনুপম হয়েছেন দ্বিতীয়। পুরস্কারটি হল ডেটা সিকিউরিটি কাউন্সিল অফ ইন্ডিয়া ‌(‌ডিএসসিআই)‌–ন্যাসকম এক্সেলেন্স অ্যাওয়ার্ড। যা ‘‌ইন্ডিয়ান সাইবার কপ অ্যাওয়ার্ড’‌ হিসেবে পরিচিত‌‌। প্রতিযোগিতায় সংস্থা হিসেবে দেশের সেরা হয়েছে ভূপাল সিটি পুলিস এবং দ্বিতীয় হয়েছে কলকাতা পুলিস। এই পুরস্কারের বিষয়ে সংস্থার পক্ষ থেকে ইতিমধ্যেই কলকাতা এবং ব্যারাকপুর পুলিসকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এ বিষয়ে ব্যারাকপুর পুলিস কমিশনারেটের কমিশনার বলেন, ‘আমরা গর্বিত। এই পুরস্কার আগামীদিনে আমাদের আরও ভাল কাজ করার অনুপ্রেরণা জোগাবে।’‌

গোটা দেশ জুড়ে এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে সিবিআই এবং এনআইএ–র মতো কেন্দ্রীয় সংস্থাগুলিও। ব্যারাকপুর কমিশনারেটের এক পুলিস কর্তা বলেন, সাইবার অপরাধ নিয়েই এই প্রতিযোগিতা হয়। দেখা হয় নির্দিষ্ট অপরাধের বিভিন্ন দিক। এর জন্য পাঠাতে হয় সমাধান হওয়া একটি মামলার গোটা বিবরণ। এই কর্তা বলেন, ‘‌দেখা হয় ওই নির্দিষ্ট মামলার প্রভাব সমাজে কী পড়ছে এবং দেশের নিরাপত্তা রক্ষায় ওই মামলার তদন্তের গুরুত্ব। যেমন দেশের অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে মামলাটি কতটা প্রভাব ফেলতে পারত বা সার্বভৌমত্ব বা নিরাপত্তা রক্ষায় মামলার গুরুত্ব কতখানি। একই সঙ্গে দেখা হয় মামলাটি কীভাবে তদন্ত হয়েছে। কোথাও কোনও দিক ফঁাক রাখা হয়েছে কি না বা রাখলে তার সুদূরপ্রসারী প্রভাব কতটা।’‌

ওই কর্তা বলেন, ‘‌শুধুমাত্র তদন্ত বা মামলার গুরুত্বই নয়, তদন্ত করে অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করা এবং সে বিচার বিভাগীয় আছে কি না সেই বিষয়টিও এই ক্ষেত্রে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কারণ মামলা চালাতে পরে যাতে কোনও সমস্যার মুখোমুখি না হতে হয়।’‌ আর সমস্ত ক্ষেত্রেই এই দুই তদন্তকারী অফিসার তাঁদের সেরাটা বের করে দিয়েছেন।