Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


October 11, 2018

Transport dept introduces 35 new vessels before Durga Puja

Transport dept introduces 35 new vessels before Durga Puja

The state Transport department has introduced 35 robust and safe vessels before Durga Puja for better transport facilities in inland waterways.

It may be mentioned that the state Transport department has already taken a series of steps to ensure that people do not face any inconvenience while availing the transport services in inland waters. At the same time, steps have also been taken to ensure security and safety of commuters.

The state government had introduced the Jalodhara scheme under which safe and robust vessels are getting introduced by which people can cross river Hooghly at different transit points without any risk.
Around 35 such vessels will be introduced ahead of Durga Puja. Around 15 of such 35 vessels are of capacity to carry 100 passengers at a time. Around 20 of such 35 vessels are under the Jalodhara project.

The state Transport department also ensured repairing of jetties following a Standard Operating Procedures (SOP). Jalosathis have also been appointed at the jetties to maintain the SOP.


অক্টোবর ১১, ২০১৮

গঙ্গায় যাত্রী পরিবহণ বাড়াতে উদ্বোধন ৩৫টি জলযানের

গঙ্গায় যাত্রী পরিবহণ বাড়াতে উদ্বোধন ৩৫টি জলযানের

দেবীপক্ষের সূচনায় জলপথের নিত্যযাত্রীদের জন্য সুখবর। গত ৯ই অক্টোবর পরিবহণমন্ত্রী যাত্রী পরিবহণের জন্য বিভিন্ন ধরনের ৩৫টি জলযানের উদ্বোধন করেন। চালু হয়েছে রোল অন-রোল অফ পরিষেবাও। গঙ্গাতেই এই সব লঞ্চ চলবে। এছাড়া, রো-রো পরিষেবাটি শুরু হবে হাতানিয়া-দোয়ানিয়া নদীতে নামখানা ও নারায়ণপুরের মধ্যে।

বছরখানেক আগেই সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ ধাঁচে জলপথে জলধারা প্রকল্প চালু করেছে রাজ্য সরকার। ওই প্রকল্পে ব্যাক্তিগত মালিকেরা জলযান চালিয়ে ব্যাবসা করতে চাইলে সরকার তাদের ১লক্ষ টাকা পর্যন্ত ভর্তুকি দেবে। এবার সেই জলধারা প্রকল্পের অর্থে পরিবহণ দপ্তর নিজেই লঞ্চ তৈরী করে চালাতে উদ্যোগী হয়েছে।
যে ৩৫টি জলযান উদ্বোধন হয়েছে, তার ১৫টি পরিবহণ দপ্তরের পশ্চিমবঙ্গ পরিবহণ নিগম তৈরী করেছে, ১৫টি উচ্চমানের লঞ্চ তৈরী করেছে পশ্চিমবঙ্গ পরিকাঠামো উন্নয়ন নিগম এবং বাকি পাঁচটি ব্যাক্তিগত মালিকানায় চলবে।

পরিবহণ দপ্তরের এক অধিকর্তা জানিয়েছে, সাধারণ ভাবে জেলা প্রশাসন বা পঞ্চায়েত এবং পুরসভাগুলি সমবায়ের মাধ্যমে এই ফেরি পরিষেবা চালায়। তাদের হাতেই ৩০টি লঞ্চ তুলে দেওয়া হবে। এই লঞ্চগুলি সবকটি উন্নত মানের এবং আধুনিক যাত্রীসুরক্ষার কথা মাথায় রেখে তৈরী করা হয়েছে। এগুলি চালু হলে গঙ্গার দুপারের মধ্যে যোগাযোগ ব্যবস্থা আরও উন্নত হবে। এই জলযানগুলিতে বেশী পরিমাণ যাত্রী বহনের ক্ষমতা আছে।

এই লঞ্চগুলি চালানোর সময় যাত্রীসুরক্ষার দিকগুলি যাতে বজায় থাকে, তার জন্য মাঝিদের বিশেষ প্রশিক্ষণও দেওয়া হয়েছে। প্রথম ধাপে ২৮জন নৌকর্মীকে এই প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে। তাঁদের হাতে শংসাপত্র তুলে দেন মন্ত্রী।