Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


October 30, 2018

Awareness on hepatitis elimination in schools

Awareness on hepatitis elimination in schools

The West Bengal Board of Secondary Education (WBBSE), or Madhyamik Board, has decided to make students aware about hepatitis elimination. For this the curriculum of class VIII syllabus is being modified. Stress will be laid on awareness about transmission of hepatitis through sexual intercourse.

This effort by the State Government is in consonance with the World Health Organisation’s (WHO) aim of eliminating hepatitis from the world by 2030.

A book has been written for the purpose, Swasthya ar Sharirshiksha (‘Health and Physical Education’), jointly by the School Education and Health and Family Welfare Departments. It has been prepared in consultation with medical and education experts

Besides lessons on safe sex and transmission of hepatitis through sex, included in the book are issues faced during teenage years as well as various other related issues faced by children during that period.

The class VIII syllabus has been chosen because that is the period when many get acquainted with these types of issues, and often are misinformed too.

Through the introduction of these topics in the syllabus, the State Government aims at creating a population of healthy, informed individuals, ready to take the plunge into adult life.

Source: Sangbad Pratidin


অক্টোবর ৩০, ২০১৮

হেপাটাইটিস নির্মূলে রাজ্যের উদ্যোগ

হেপাটাইটিস নির্মূলে রাজ্যের উদ্যোগ

রক্ষণশীলতার ট্যাবু ভাঙল পশ্চিমবঙ্গ সরকার। আগামী প্রজন্মকে বেশি করে স্বাস্থ্য সচেতন করতে স্কুলের সিলেবাস সংস্কার করল মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। হেপাটাইটিস নির্মূলে নানা পদক্ষেপের কথা বলা হয়েছে অষ্টম শ্রেণীর বইতে। একইসঙ্গে অসাবধানী যৌন সংসর্গের ফলে যে হেপাটাইটিস হতে পারে সেই পাঠও পাবে ছাত্রছাত্রীরা।

কৈশোরের ক্লাসরুমকে সাবালক করতে বয়ঃসন্ধির বিভিন্ন সমস্যাও পড়ানোর আলোচনা চলছে। স্বাস্থ্য বিষয়ক বিভিন্ন ইস্যু সিলেবাসে ঢুকেছে। অষ্টম শ্রেণির পাঠ্যে বিভিন্ন ধরনের হেপাটাইটিস নিয়ে আলোচনা হয়েছে। চিকিৎসকদের পরামর্শ মতো হেপাটাইটিস রোখার বিভিন্ন উপায় জানানো হবে পড়ুয়াদের।

পর্ষদের ‘স্বাস্থ্য ও শারীরশিক্ষা’ বইয়ের একটি অংশে বলা হয়েছে, ‘একজন আক্রান্ত ব্যক্তির সঙ্গে অপর একজনের যৌন কার্যকলাপের ফলে সংক্রমিত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে’। অভিভাবক ও শিক্ষকদের মাধ্যমে আগামী প্রজন্মকে মূল্যবোধ ও নিয়ন্ত্রিত জীবন যাপনের পাঠ দিতে চায় সরকার।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, যৌন সম্পর্ক ছাড়াও ট্যাটু আঁকা, নাভিতে রিং লাগানো, নাক বা কান ফোঁড়ানো, রক্ত দেওয়া নেওয়া, দাঁত তোলার সময় বেশি করে সচেতনতা দরকার। আগাম ব্যবস্থা না নিলে হেপাটাইটিস-সহ নানা রোগে সংক্রামিত হওয়ার আশঙ্কা থাকে।

প্রসঙ্গত, বিশ্বস্বাস্থ্য সংস্থা হু ২০৩০ সালের মধ্যে দুনিয়া থেকে হেপাটাইটিস নির্মূল করার লক্ষ্যমাত্রা স্থির করেছে। সেকথা মাথায় রেখেই বিভিন্ন ধরনের হেপাটাইটিস ও তা রোখার কথা স্কুলপাঠ্যে রাখা হয়েছে। পর্ষদ সূত্রে খবর, ২০১১ সালের আগে স্বাস্থ্য ও শারীরশিক্ষার বই ছিল না। স্বাস্থ্য ও স্কুলশিক্ষা দফতরের মিলিত চেষ্টায় বইটি তৈরি হয়েছে।