Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


June 6, 2018

Rural house construction – Nadia top district in India

Rural house construction – Nadia top district in India

After becoming the first district in the country to be declared open defecation free (ODF), Nadia gets another feather in its cap – number one in Gramin Awaas Yojana.

According to a Central Government report, the district achieved the feat for both the 2016-17 and 2017-18 financial years. For 2016-16, 98.06 per cent of the target of 48,520 houses has been completed.

The district administration had combined Gramin Awaas Yojana (earlier known as Indira Awaas Yojana) with Mission Nirmal Bangla and 100 Days’ Work Scheme to construct, along with houses, toilets, vermin pits and compost pits, too. LPG and electrical connections were also provided all across the district.

Over the two financial years, Rs 660 crore had been spent in all.

Thus, Nadia has become a beacon of development and for this, the active encouragement of the district administration by the Trinamool Congress Government is largely responsible. Under Chief Minister Mamata Banerjee, Bengal is a model across many aspects of governance.

Source: Bartaman


জুন ৬, ২০১৮

গ্রামীণ গৃহ প্রকল্পে দেশের সেরা নদীয়া

গ্রামীণ গৃহ প্রকল্পে দেশের সেরা নদীয়া

শৌচাগার নির্মাণের পর গ্রামীণ গৃহ প্রকল্পে আবারও দেশের সেরার তকমা পেল নদীয়া। ২০১৬-১৭ এবং ২০১৭-১৮ আর্থিক বর্ষের গ্রামীণ গৃহ প্রকল্পে এই নদীয়া জেলা এই সাফল্য অর্জন করেছে। নদীয়া জেলার মডেল কেন্দ্রীয় সরকার গ্রহণ করেছে। গ্রামীণ গৃহ প্রকল্পে বাড়ির সঙ্গে শৌচাগার, এলপিজি গ্যাস সংযোগ, বিদ্যুৎ সংযোগও দেওয়া হয়েছে এই জেলায়।

২০১৫ সালে শৌচাগার নির্মাণ প্রকল্পে ভারতসেরা হয়েছিল নদীয়া, হয়েছিল দেশের প্রথম নির্মল জেলা। এজন্য রাষ্ট্রসংঘ থেকে জেলা প্রশাসন পুরস্কৃত হয়। এবার মিলল আবার সেরার শিরোপা। গ্রামীণ গৃহ প্রকল্পে দেশের ৬১০টি জেলাকে পেছনে ফেলে প্রথম হল নদীয়া। ২০১৬-১৭ এবং ২০১৭-১৮ আর্থিক বর্ষে জেলায় ৪৮ হাজার ৫২০টি বাড়ির মধ্যে তৈরী হয়েছে ৪৭ হাজার ৯৩টি বাড়ি, যা মোট লক্ষ্যমাত্রার ৯৮.৫৬ শতাংশ।

কেন্দ্রীয় সরকারের গৃহ অনুমোদনের হার, আধার সঞ্জুক্তি, শতকরা ইন্সটল্মেন্ট দেওয়ার হার এবং গৃহ নির্মাণের হারের ওপর ভিত্তি করে র‍্যাঙ্কিং পদ্ধতি ঠিক হয়। গ্রামীণ গৃহ প্রকল্পে দুবছর আগে এই জেলার মডেল কেন্দ্রীয় সরকার গ্রহণ করে। ইন্দিরা আবাস যোজনার সঙ্গে মিশন নির্মল বাংলা ও ১০০ দিনের প্রকল্পে শৌচাগার, শোষক পিট এবং কম্পোস্ট পিট নির্মাণের পাশাপাশি জেলা পরিষদের তহবিল থেকে এলপিজি গ্যাস কানেকশন ও বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয় উপভোক্তাকে।

গত দুই আর্থিক বর্ষে জেলায় এই প্রকল্পে খরচ হয়েছে ৬৬০ কোটি টাকা। মোট ৪৫ হাজার ১০৪ জন উপভোক্তার বাড়িতে শোষক পিট নির্মাণ করা হয়েছে। ২৭ হাজার ৬১৫ জনকে এলপিজি গ্যাস কানেকশন ও ১৪ হাজার ৩৭৯ জনকে বিদ্যুৎ সংযোগ দেওয়া হয়।