Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


June 8, 2018

Cage culture of bhetki to be taken up by State Govt

Cage culture of bhetki to be taken up by State Govt

After a successful pilot project by the State Government’s West Bengal University of Animal and Fishery Sciences last year , cage culture of bhetki would be taken up on a large scale along the coast in the districts of Purba Medinipur and South 24 Parganas.

To begin with, the bhetki would be cultured in 200 cages – 100 in each district. The cages would be floated at places where the depth to the sea floor is more than 26 feet. They would be kept floating with the help of buoys, and would be anchored to the seabed.

Fishing nets 12 feet long would be attached to the cages, in which would be released the bhetki hatchlings. They would grow to their adult sizes within these nets, from which they would then be retrieved. The cultivation of the fish would take place for nine months every year.

Source: Bartaman


জুন ৮, ২০১৮

সমুদ্রে খাঁচা পেতে এবার ভেটকি মাছ চাষ করবে রাজ্য

সমুদ্রে খাঁচা পেতে এবার ভেটকি মাছ চাষ করবে রাজ্য

বাঙালির পাতে মাছের যোগান বাড়াতে এবার সমুদ্রে খাঁচা পেতে ভেটকি মাছ চাষের উদ্যোগ নিল রাজ্য মৎস্য দপ্তর। পাইলট প্রোজেক্ট হিসেবে চলতি বছরে পূর্ব মেদিনীপুর ও দক্ষিণ ২৪ পরগণার সমুদ্রে মোট ২০০ টি খাঁচা ফেলে ভেটকি চাষ করা হবে। খাঁচায় মাছ চাষের দায়িত্ব স্থানীয় মৎস্যখটি ও মৎস্যজীবীদের নিয়ে তৈরী সমবায় সমিতির হাতে দেওয়া হবে।

এই প্রকল্প সফল হলে আগামী দিনে সমুদ্রে আরও বেশী সংখ্যক খাঁচা ফেলে মাছ চাষের উদ্যোগ নেওয়া হবে। প্রতিটি খাঁচা তৈরী করে মাছ চাষ শুরু করার জন্য পাঁচ লক্ষ টাকা করে বরাদ্দ করা হয়েছে।

পূর্ব মেদিনীপুর জেলার খেজুরি থেকে দীঘা পর্যন্ত সমুদ্রে মোট ১০০টি খাঁচা ফেলে ভেটকি মাছ চাষ করা হবে। গতবছর মৎস্য দপ্তরের সাহায্য নিয়ে ওয়েস্টবেঙ্গল অ্যানিমেল অ্যান্ড ফিশারি সায়েন্স ইউনিভার্সিটি পরীক্ষামূলকভাবে সমুদ্রে খাঁচা ফেলে মৎস্য চাষ শুরু করে। পরীক্ষামূলক মাছ চাষের নতুন পদ্ধতি প্রাথমিকভাবে সফল হওয়ায় রাজ্য মৎস্য দপ্তর এবার কোমর বেঁধে নেমেছে।

সমুদ্রে ২৬ ফুটের বেশী গভীরতা রয়েছে, এমন জায়গায় সব খাঁচা পাতা হবে। খাঁচা ভাসিয়ে রাখার জন্য ভাসমান ড্রাম বা বয়া ব্যবহার করা হবে।

মরচে ধরার সমস্যা এড়াতে লোহার রোড দিয়ে তৈরী খাচাতে পুরু ফাইবার দিয়ে কোটিং করা হবে। নৌকা বা টড়লার নোঙর করার মতো এসব খাঁচা নোঙর দিয়ে আটকানো থাকবে। ভাসমান খাঁচা থেকে ১২ ফুট লম্বা জাল ফেলা হবে। জালকে জলে ডুবিয়ে রাখার জন্য নীচে ভারী লোহার বল দেওয়া হবে। এই জালের মধ্যে ছোট ভেটকি মাছের চারা ছাড়া হবে। জালের মধ্যে থাকা মাছের জন্য ওপর থেকে খাবার দেওয়া হবে। বছরে নমাস খাঁচায় মাছ চাষ করা যাবে।