Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


June 11, 2018

31 creatures at Alipore Zoo adopted

31 creatures at Alipore Zoo adopted

Thirty-one creatures were adopted for a total price of Rs 11.5 lakh during the recently-concluded adoption programme at Alipore Zoo.

This was good news for the zoo authorities as it takes a part of the load off their shoulders and importantly, it shows the interest that the people of the city have in wildlife.

This adoption scheme at the zoo was started during 2013-14, and was very successful. After a slight luss, the scheme has again picked up a lot of interest. Especially making the zoo authorities happy this year was the fact that among the adopters were school children, who had come with their parents. This showed that the young generation cares for wildlife.

The creatures adopted included both common and rare ones. Among them were peacock, porcupine, fishing cat (State animal of Bengal and a rare animal), deer, giraffe, jaguar, macaw, mouse deer and others. The adopters were handed out certificates of recognition.

The scheme is not over. According to zoo authorities, there are still creatures which can be adopted and they are waiting eagerly for more takers.

Source: Bartaman


জুন ১১, ২০১৮

দত্তক প্রকল্প: চিড়িয়াখানার ৩১টি পশুপাখি পেল ‘অভিভাবক’

দত্তক প্রকল্প: চিড়িয়াখানার ৩১টি পশুপাখি পেল ‘অভিভাবক’

মঙ্গলবার পরিবেশ দিবস উপলক্ষে চিড়িয়াখানায় একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছিল। সেখানে ১১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকার বিনিময়ে আলিপুর চিড়িয়াখানায় ৩১টি প্রাণীর দত্তক প্রক্রিয়া সম্পন্ন হল। এদিন যারা দত্তক নিতে এসেছিলেন, তাঁদের মধ্যে একটা অংশ ছিল স্কুল ছাত্রছাত্রী ও তার পরিবার।

ময়ুর, সজারু, হর্নবিল, মেছো বিড়াল, হরিণ, জিরাফ, জাগুয়ার, ম্যাকাও, মাউস ডিয়ারদের মতো পশুপাখিরা পেল অভিভাবক। তাঁদের হাতে তুলে দেওয়া হল সার্টিফিকেট। এদিন থেকেই ওইসব পাখি ও প্রাণীর খাঁচার বাইরে ‘অভিভাবক’দের নাম ঝুলিয়ে দেওয়া হয়েছে।

স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া (এসবিআই) মোট ৯টি প্রাণী দত্তক নিয়েছে। তার মধ্যে রয়েছে ৭টি জিরাফ এবং দু’টি জাগুয়ার। সব মিলিয়ে তারা ব্যয় করেছে ৯ লক্ষ টাকা। গত বছরই চিড়িয়াখানায় এসেছে ৬টি মাউস ডিয়ার ও জাগুয়ার। তাদেরও দত্তক নেওয়া হল। ব্যাঙ্ক বা কোনও সংস্থা ছাড়াও ব্যক্তিগত উদ্যোগে দত্তক প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করেছেন অনেকে।

তবে গত কয়েক বছরের পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, ২০১৩-১৪ সালে যখন প্রথম এই প্রক্রিয়া শুরু হয়, তখন দত্তক নেওয়ার উৎসাহ ছিল সবচেয়ে বেশি। সেইবার ব্যক্তি ও সংস্থা মিলিয়ে ২৯টি ‘পার্টি’ ৪২টি প্রাণীকে দত্তক নিয়েছিল।

দত্তক প্রক্রিয়ায় যে টাকা এল চিড়িয়াখানার কোষাগারে, তা মূলত এই প্রাণীদের খাবার এবং ওষুধে খরচ করা হবে।

সৌজন্যে: বর্তমান