Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


June 5, 2018

Protection of wetlands and coastal zones in Bengal

Protection of wetlands and coastal zones in Bengal

East Kolkata Wetlands Management Authority (EKWMA) and Institute of Environmental Studies and Wetland Management (IESWM) are two agencies under the Environment Department. They carry out protection work for the wetlands in eastern Kolkata and research in management and conservation of wetlands across the State and coastal zones, respectively.

East Kolkata Wetlands Management Authority (EKWMA)

EKWMA has the responsibility of managing the East Kolkata Wetlands (EKW).

The East Kolkata Wetlands are situated along the eastern fringes of Kolkata. It contains a number of shallow fish ponds, agricultural fields and villages.

It is one of the most important Ramsar sites of the country, a designation implying the EKW as a ‘Wetland of International Importance’.

The wetlands possess the unique natural facility of waste water purification for the entire metropolis of Kolkata, the only Ramsar site in the world with such a function.

The wetlands are also a major source of food for the fish and other aquatic creatures inhabiting there, which in turn provide livelihood to a lot of people.

Institute of Environmental Studies and Wetland Management (IESWM)

IESWM carries out research on wetlands and coastal zones of Bengal as well as of other parts of the country.

It houses the State Project Management Unit (SPMU) of the World Bank, which aids the Integrated Coastal Zone Management Project.

The Coastal Zone Management Plan of Bengal is being prepared as part of the project. As a result of the project, which is nearing completion, significant achievements have been made, like improvement of civic infrastructure and beach amenities in Digha, 100 per cent electrification of Sagar Island (where the famous Sagar Mela is held annually), livelihood enhancement through self-help groups (SHG), 25 cyclone shelters and eco-tourism activities.

The institute is also one of the eight authorised agencies in the country for the preparation of coastal regulation zone (CRZ) maps, which are referred to for getting the mandatory CRZ clearance for coastal projects. It has also prepared CRZ maps for the Central Government organisations, Defence Research and Development Organisation (DRDO) and Kolkata Port Trust (Haldia and Diamond Harbour sites).

Together, these two institutes have been doing a lot of significant work for various aspects of the environment of Bengal, and in the case of the latter, India too.

Source: Departmental Budget


জুন ৫, ২০১৮

উপকূল ও জলাভূমি রক্ষায় সদর্থক ভূমিকা রাজ্যের

উপকূল ও জলাভূমি রক্ষায় সদর্থক ভূমিকা রাজ্যের

পরিবেশ দপ্তরের দুই সংস্থা ‘ইস্ট কলকাতা ওয়েটল্যান্ডস ম্যানেজমেন্ট অথরিটি’ এবং ‘ইন্সটিটিউট অফ এনভায়রনমেন্টাল স্টাডিস অ্যান্ড ওয়েটল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট’ পূর্ব কলকাতার জলাভূমি রক্ষা ও গবেষণার দায়িত্বে আছে।এছাড়াও তারা রাজ্যে উপকূল সংরক্ষণ এবং ব্যবস্থাপনার কাজ করে থাকে।

ইস্ট কলকাতা ওয়েটল্যান্ডস ম্যানেজমেন্ট অথরিটি

ইস্ট কলকাতা ওয়েটল্যান্ডস ম্যানেজমেন্ট অথরিটি পূর্ব কলকাতার জলাভুমির রক্ষা ও গবেষণার দায়িত্বে আছে। কলকাতার পূর্ব সীমান্তে এই জলাভূমিগুলি অবস্থিত। এই অঞ্চলে ছোট মাছের চাষ করার জন্য পুকুর, চাষের জমি ও গ্রাম আছে। ইস্ট কলকাতা ওয়েটল্যান্ডস একটি গুরুত্বপূর্ণ রামসার সাইট। এই জলাভুমিগুলি প্রাকৃতিক উপায়ে কলকাতা শহরের জল পরিশ্রুতিকরণে এক অনন্য ভূমিকা পালন করে। এটি বিশ্বে একমাত্র এই রামসার সাইটেই হয়। এই অঞ্চলগুলি মাছেদের ও অনান্য জলজ প্রাণীদের খাদ্য সরবরাহে এক গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে থাকে।

ইন্সটিটিউট অফ এনভায়রনমেন্টাল স্টাডিস অ্যান্ড ওয়েটল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট

ইন্সটিটিউট অফ এনভায়রনমেন্টাল স্টাডিস অ্যান্ড ওয়েটল্যান্ড ম্যানেজমেন্ট রাজ্যের অন্যান্য জলাভূমি ও উপকূল অঞ্চলের ওপর গবেষণা করে। এখানে বিশ্ব ব্যাঙ্কের স্টেট প্রোজেক্ট ম্যানেজমেন্টের একটি ইউনিট আছে, যা Integrated Coastal Zone Management Project টিকে অর্থসাহায্য করে থাকে। দি কোস্টাল জোন ম্যানেজমেন্ট প্ল্যান অফ বেঙ্গল এই প্রকল্পের অংশ। এই প্রকল্প প্রায় শেষ পর্যায়ে।

ইতিমধ্যেই প্রকল্পটি অনেকটা সাফল্য অর্জন করেছে, যেমন, দীঘাতে পুরসভার ও সমুদ্রতটের উন্নয়ন, সাগর দ্বীপের ১০০ শতাংশ বিদ্যুতায়ন, স্বনিরভর গোষ্ঠীর মাধ্যমে জীবনের মান উন্নয়ন, ২৫টি সাইক্লোন-শেল্টার এবং নানা ইকো ট্যুরিজম প্রকল্প।

এই দুই প্রতিষ্ঠান যৌথভাবে রাজ্যের পরিবেশে রক্ষার জন্য অনবদ্য কাজ করে চলেছে।