Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


June 8, 2018

Rs 107 crore to check riverbank erosion

Rs 107 crore to check riverbank erosion

The Bengal Government has decided to invest Rs 107 crore to check erosion at vulnerable areas along the banks of the Ganga and the Padma. The work will be completed by March 2019.

Hundreds of people will get relief as they would no longer have to worry about their houses getting washed away by strong currents.

Another relevant issue in this case is national security. The Padma, for a large part of its flow in Murshidabad, forms the border between Bengal and Bangladesh. The erosion of its banks also leads to a threat to security as there have been instances when riverbanks close to border outposts (BOP) of Border Security Force (BSF) were washed away. On the other hand, a stretch of the Ganga divides Malda with the neighbouring States on the west.

It may be mentioned that during financial year 2017-18, the State Irrigation Department had invested Rs 72.1 crore for the same purpose. With this investment of Rs 107 crore, a stretch of 15 km will be concretised, so that the soil does not get eroded any more.

Around 37 spots have been identified where erosion of riverbanks is a serious problem and hampers the normal lives of people. The most vulnerable of these spots will be concretised initially.

Source: Millennium Post


জুন ৮, ২০১৮

নদী ভাঙন রুখতে রাজ্যের ১০৭ কোটি টাকা

নদী ভাঙন রুখতে রাজ্যের ১০৭ কোটি টাকা

১০৭ কোটি টাকা ব্যয় করে গঙ্গা-পদ্মার ভাঙন রোখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে রাজ্য সরকার। এই কাজ ২০১৯ সালের মার্চ মাসের মধ্যে শেষ করা হবে।

এই কাজের ফলে হাজার হাজার রাজ্যবাসী নিশ্চিন্ত হবেন। ভাঙনের ফলে বাড়ি ঘর ভেসে যাওয়ার সম্ভাবনা এতে নির্মূল করা যাবে।

এই কাজের আরেকটি দিক হল জাতীয় নিরাপত্তা। মুর্শিদাবাদ জেলার একটি বিরাট অংশে পদ্মা নদী বয়ে চলেছে। এই নদীই ভারতবর্ষ এবং বাংলাদেশের সীমান্তবর্তী এলাকায় বয়ে চলেছে। অনেক সাময় দেখা গেছে, বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স আউটপোস্ট যে অঞ্চলে আছে, সেখানে ভাঙনের ফলে অনেক আউটপোস্টের সলিল সমাধি হয়েছে। পাশাপাশি, অন্যান্য রাজ্যগুলির সাথে সীমান্তের কাজ করে গঙ্গা।

প্রসঙ্গত, ২০১৭-১৮ অর্থবর্ষে রাজ্য সেচ দপ্তর এই একই উদ্দেশ্যে ৭২.১ কোটি টাকা ব্যয় করেছে। এবার এই ১০৭ কোটি টাকা বিনিয়োগে ১৫ কিলো মিটার পাড়কে কংক্রিট দিয়ে বাঁধানো হবে।

আনুমানিক ৩৭টি জায়গা চিহ্নিত করা হয়েছে যেখানে গঙ্গার ভাঙন প্রায়শই হয়ে থাকে ও জনজীবনকে ব্যহত করে। এই জায়গাগুলির মধ্যে ভাঙনের সম্ভাবনা অনুযায়ী কাজ শুরু করা হবে।