Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


September 14, 2018

Singur Now – A hub of agricultural productivity

Singur Now – A hub of agricultural productivity

About two years ago, on August 31, 2016, the Supreme Court of India passed a historic judgment declaring that the land acquisition made by the erstwhile Left Front Government in Singur was illegal and unconstitutional. It asked the present Trinamool Congress Government led by Chief Minister Mamata Banerjee to return the plots to their owners. Thus the 10-year struggle of Mamata Banerjee against illegal land acquisition ended in a victory for the farmers.

Mamata Banerjee had hailed the Supreme Court’s decision and said she had “tears of joy”. On September 2, 2016, Singur Utsav was observed in every block of Bangla to commemorate the Supreme Court decision quashing the acquisition of land in Singur. Rallies were taken out by Trinamool activists and supporters in various parts of the State while celebrating ‘Singur Vijay Diwas’. Cultural programmes were held and the day was observed in the Vidhan Sabha too.

On September 14, 2016, Mamata Banerjee handed over land parchas (land deeds) and compensation cheques to farmers in Singur. To commemorate this occasion, September 14 is being celebrated as Singur Dibas this year.

Around 9,117 land deeds were handed over in 2016. Around 800 compensation cheques were handed over by the Chief Minister and her Cabinet colleagues to those farmers who had to unwillingly part with their land. “In the first lot, 9,117 parchas were given. All land will be returned in cultivable form within eight weeks,” she had said in 2016, during her visit to Singur after the judgement.

The Chief Minister said that the government will be setting up check dams and small tubewells for irrigation in Singur. She added that soil testing would be done and all fertilisers for making the land fertile and cultivable would be provided to the farmers.

On October 17, the Bengal Chief Minister said that the process of giving physical possession of land in Singur would begin on October 20 and will be completed in 15 to 20 days.

On October 20, Chief Minister Mamata Banerjee formally re-commenced farming on the plots of land in Singur which were given away to Tata Motors’ Nano project by the Left Front Government, by sowing seeds of mustard on those plots.

By November 2016, the land was returned and by January 2017, the 300 or so farmers whose land had not been affected by the steel and concrete structures had already started producing golden-skin potatoes that farmers in Singur are renowned for. Rabi and Boro crops were grown as well in Singur. The Government also encouraged the use of organic fertilisers there.

About 230 acres of paddy fields sown in early February using new, low-water techniques have produced knee-high crops. Sesame, maize, cucumbers and banana have also been planted. A new power network now runs 63 freshly drilled wells for dry season irrigation and sprinklers and drips are in use. The State Government had also provided farmers with high-yielding seeds, fertilizer and Rs 10,000 toward new farm equipment and extra workers to help with labour.

With all these steps taken, Singur has become a model for the agriculture and horticulture sectors.


সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৮

সিঙ্গুর ফিরেছে শস্যের ভাণ্ডারে

সিঙ্গুর ফিরেছে শস্যের ভাণ্ডারে

দুই বছর আগে অর্থাৎ ৩১শে আগস্ট ২০১৬ তারিখে মহামান্য সুপ্রিম কোর্ট এক ঐতিহাসিক রায়ে পূর্বতন বামফ্রন্ট সরকারের সিঙ্গুরের জমি অধিগ্রহণকে ‘অবৈধ ও অসাংবিধানিক’আখ্যা দেন। মহামান্য আদালত বর্তমান তৃণমূল সরকারকে নির্দেশ দেন কৃষকদের জমি ফিরিয়ে দিতে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দীর্ঘ ১০ বছরের অক্লান্ত সংগ্রামের এক মধুর সমাপতন ঘটে।

বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের এই রায়কে স্বাগত জানান। তিনি আবেগপ্রবণ হয়ে ঘোষণা করেন রাজ্যের সব ব্লকে সিঙ্গুর উৎসব পালিত হবে। ২রা সেপ্টেম্বর রাজ্যের প্রান্তে প্রান্তে তৃণমূল কংগ্রেস কর্মী সমর্থকরা মিছিল বার করেন, বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করা হয়। বিধান সভায়ও ‘সিঙ্গুর বিজয় দিবস’ পালন করা হয়।

সেপ্টেম্বরের ১৪ তারিখ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সিঙ্গুরের চাষিদের হাতে জমির পরচা ও ক্ষতিপূরণের চেক তুলে দেন। প্রায় ৯১১৭টি পরচা তুলে দেওয়া হয়। প্রায় ৮০০ জন অনিচ্ছুক কৃষকদের ক্ষতিপূরণের চেক প্রদান করেন মুখ্যমন্ত্রী ও মন্ত্রীসভার অন্যান্য মন্ত্রীরা। সিঙ্গুরের জনসভায় মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “প্রথম দফায় ৯১১৭টি পরচা তুলে দেওয়া হয়, আগামী আট সপ্তাহের মধ্যে জমি চাষযোগ্য করে ফেরত দেওয়া হবে। সরকার চেক বাঁধ ও ছোট টিউবওয়েলের ব্যবস্থা করছে সিঙ্গুরে সেচের জন্য।” তিনি আরও বলেন, জমি পরীক্ষার কাজ চলছে এবং এই জমিকে উর্বর ও চাষযোগ্য করে তুলতে যা সার লাগে, সব চাষিদের প্রদান করা হবে।

১৭ই অক্টোবর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, জমি হস্তান্তরের প্রক্রিয়া ২০ই অক্টোবর থেকে শুরু করা হবে ও ১৫-২০ দিনের মধ্যে পুরো প্রক্রিয়া শেষ হয়ে যাবে। ২০শে অক্টোবর যে জমি বামফ্রন্ট সরকার কেড়ে নিয়েছিল, সেই জমিতে সরিষার বীজ ছড়িয়ে পুনরায় চাষ করা শুরু করেন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী।

নভেম্বর মাসের মধ্যে জমি হস্তান্তরের কাজ শেষ হয়। জমিতে আলু উৎপাদন হয় ২০১৭ সালের জানুয়ারি মাসেই। এই আলুর জন্যই সিঙ্গুর বিখ্যাত সারা বিশ্বে।

২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে প্রায় ২৩০ একর ধান জমিতে ফলন হয়েছিল। তিল, ভুট্টা, শসা ও কলার চাষও শুরু হয়েছে। রবি ও বোরো শস্যও ফলন হচ্ছে সিঙ্গুরে। জৈব সার ব্যবহার করতেও উৎসাহ দিচ্ছে রাজ্য সরকার। রাজ্য সরকার বীজ ও সার দিয়েছিল কৃষকদের। এছাড়া, নতুন যন্ত্রপাতি কেনা ও চাষের সহযোগিতা করতে অতিরিক্ত লোকের জন্য ১০,০০০ টাকা করে প্রদান করা হয়েছিল।

রাজ্য সরকারের এই সকল পদক্ষেপের মধ্যে দিয়ে সিঙ্গুর আবারও শস্যের ভাণ্ডারে নিজের জায়গা ফিরে পেয়েছে।