Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


September 10, 2018

15 things Abhishek Banerjee said at Digital Media Conclave

15 things Abhishek Banerjee said at Digital Media Conclave

The social media cell of All India Trinamool Congress today organised a digital media conclave at Nazrul Mancha, Kolkata. The keynote speaker was Abhishek Banerjee, the National President of All India Trinamool Youth Congress and MP of Diamond Harbour.

Also, the AITC General Secretary Subrata Bakshi, MP Kakoli Ghosh Dastidar, Colonel Diptansu Chowdhury, Suparno Moitra also spoke on the occasion.

Trinamool Chairperson Mamata Banerjee addressed the gathering over phone.

Highlights of Abhishek Banerjee’s speech:

1. Today is a historic day. Some political parties have called Bharat Bandh today. People were anxious whether the Digital Conclave will be held today. I am happy to see participants here, not only from Kolkata and suburbs but all over Bengal.

2. We support the cause (rising fuel prices). But Mamata Banerjee has taken a stand against bandh, which only leads to an unproductive day. In fact, today the number of vehicles plying on the roads is higher than on normal days.

3. People have given a positive response to Mamata Banerjee’s call for keeping Bengal running on bandh day. During the Left Front era, 80 lakh mandays were lost due to bandhs, not anymore.

4. Our workers are working tirelessly, both on ground, as well as on social media. BJP spends crores on social media. We have dedicated supporters who voluntarily spread the party’s message on digital platforms.

5. We have organised smaller conclaves in the past. We are planning to organise a full-fledged convention at Netaji Indoor Stadium. I will personally request Mamata Banerjee to address that convention.

6. We have to fight unitedly. There should not be any fights between different supporter groups. We are all working for the party. We have only one leader – Mamata Banerjee.

7. We are no longer dependent on the mainstream media for spreading our message. Our workers are our assets. They help us in spreading the word about various developmental programmes on social media.

8. The BJP, CPI(M) and Congress have become one. They do not believe in ethical politics. Just to form a panchayat board in Baghmundi, they joined hands.

9. The fight is between a humane government (in Bengal) and a demonic government (at Centre). They talk about Babri, we talk about chakri (jobs). They talk about jaat (caste), we talk about bhaat (food). They talk about danga (riots), we work for keeping our State chaanga (in good health).

10. The Opposition has the habit of politicising every incident. They do not think about human sensitivities. The sick politics over Majerhat flyover collapse could not wait for 3-4 days?

11. Even during Posta flyover tragedy, what did Modi say? He said it was an act of God. What did Didi do after pandal broke at the PM’s rally? She visited the injured at hospital.

12. The prices of petrol and diesel are rising. The value of rupee is falling. They are competing, who will hit the century first. The price of dollar has increased 40% in 4 years. Common people are suffering due to inflation.

13. Not a single media house is discussing these issues. Because they know if they open their mouth, the agencies like ED and CBI will hound them.

14. The BJP believes in politics of polarisation while we talk of development. They accuse Mamata Banerjee of minority appeasement. What appeasement? The imam bhata is given from Waqf fund, which is the money of Muslims. Tax payers’ money is not used for this purpose. On the other hands, everyone benefits from her schemes like Kanyashree, Yuvashree, Sabuj Sathi, Gatidhara and others.

15. They even want to dictate what one will wear, what one will eat, what one will read or what one will watch. We have to follow the directions given by our leader Mamata Banerjee, and work unitedly to defeat the communal forces in 2019.

 


সেপ্টেম্বর ১০, ২০১৮

ডিজিটাল কনক্লেভের মঞ্চ থেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বার্তা - দেখে নিন এক ঝলকে

ডিজিটাল কনক্লেভের মঞ্চ থেকে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বার্তা - দেখে নিন এক ঝলকে

আজ নজরুল মঞ্চে তৃণমূল কংগ্রেসের সোশ্যাল মিডিয়া সেলের তরফে একটি ডিজিটাল মিডিয়া কলকলেভের আয়োজন করা হয়েছিল। প্রধান বক্তা ছিলেন তৃণমূল যুব কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি ও সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

এছাড়াও, দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক সুব্রত বক্সী, সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদারও বক্তব্য রাখেন। বক্তব্য রাখেন কর্ণেল দীপতাংশু চৌধুরী এবং সুপর্ণ মৈত্র।

ফোনে শুভেচ্ছাবার্তা ও দিকনির্দেশ দেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ডিজিটাল কনক্লেভে অভিষেকের বক্তব্যের কিছু অংশ:

  • আজকের দিনটি ঐতিহাসিক দিন। সকলে খুব উৎকণ্ঠায় ছিল আজকে এই ডিজিটাল কনক্লেভ হবে কি না, কারণ কয়েকটি দল আজ ভারত বনধ ডেকেছে। কিন্তু আজ সারা বাংলা থেকে আমাদের সক্রিয় কর্মীরা এসেছে আজ এই কনক্লেভ। এই কনক্লেভের পর একটি মহামিছিল করব জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধির ইস্যুতে।
  • মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন বাংলায় এখন আর বনধ হয় না। এই বনধ আমাদের কৃষ্টি, সংস্কৃতিকে নষ্ট করেছে। বনধ এর কারণে সিপিএম আমলে প্রায় ৮০ লক্ষের বেশি কর্মদিবস নষ্ট হয়েছে। আমাদের আমলে এই সংখ্যাটা কমে হয়েছে শূন্য। আমাদের বাংলাকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।
  • আমাদের কর্মীরা অক্লান্ত পরিশ্রম করে চলেছেন। আগামীদিনে নেতাজি ইনডোরে আমরা আরও বড় কনক্লেভের আয়োজন করব যেখানে বাংলার প্রতিটি প্রান্ত থেকে মানুষ আসতে পারবেন। সেখানে আমরা মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীকে গাইডলাইন দেওয়ার জন্য আসতে অনুরোধ জানাবো।
  • আমাদের সকলকে মিলে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করতে হবে। নিজেদের মধ্যে প্রতিযোগিতা থাকা ভালো কিন্তু সেটা তথ্য ও পরিসংখ্যানকে সামনে রেখে। নিজেদের বড় ছোট দেখতে গিয়ে দলকে ছোট করবেন না।
  • কোন কর্মী কোথায় বসে কি লিখছে, কে কেমন কাজ করছে – ভালো না খারাপ তা মুখ্যমন্ত্রী নিজে তা প্রতিনিয়ত মনিটরিং করেন।
  • বিজেপি, সিপিএম কংগ্রেস এখন এক হয়ে গেছে, ওদের কোন রাজনৈতিক নীতি বা আদর্শ নেই. কিন্তু তৃণমূল কারো সাথে কোনও কম্প্রোমাইজ করে না।
  • কিছু দালালরা চায় বাংলার উন্নয়নকে স্থগিত করে বাংলার কালো দিন, রক্তের দিন ফিরিয়ে আনতে। আমরা তাদের ওপর আর নির্ভর করি না, আমরা কোন সংবাদমাধ্যম বা সংবাদপত্রিকার ওপর নির্ভরশীল নই। আমরা আমাদের কর্মীদের ওপর নির্ভরশীল। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে বাংলায় যেসব উন্নয়নমূলক প্রকল্প চালু হয়েছে তার প্রচার করা আমাদের সকলের দায়িত্ব।
  • কোনও দাদা জিন্দাবাদ নয়। শুধুমাত্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জিন্দাবাদ, তৃণমূল জিন্দাবাদ, মা মাটি মানুষ জিন্দাবাদ।
  • ২০১৯ এর নির্বাচনের লড়াইটা হবে মানবিক সরকার বনাম দানবিক সরকার। ওরা যদি বলে বাবরি, আমরা বলব চাকরি। ওরা যদি বলে জাত, আমরা বলব ভাত। ওরা যদি বলে দাঙ্গা, আমরা বাংলাকে করব চাঙ্গা।
  • আজকাল যে কোনও ইস্যুতে রাজনীতি করতে ছাড়েনা বিরোধীরা। একটা দুর্ঘটনা ঘটেছে। আপনাদের রাজনীতিটা আর তিন চারদিন না করলে হত না? একটুও মানবিকতা নেই?
  • ২০১৬ সালে পোস্তা উড়ালপুল কাণ্ডের পর মোদী বলেছিলেন “Act of God”। আর যখন ওদের প্যান্ডেল ভেঙে পড়লো তখন আমাদের নেত্রী হাসপাতালে গেলেন ওদের আহত কর্মীদের দেখতে। এটাই ওদের সঙ্গে আমাদের পার্থক্য।
  • আজ সকালেও ২২ পয়সা দাম বেড়েছে পেট্রোলের, পেট্রোল প্রায় ৮৫ টাকা প্রতি লিটার, ডিজেল প্রায় ৭৪ টাকা প্রতি লিটার, আর ডলার ৭৪ – তিনটের মধ্যে প্রতিযোগিতা হচ্ছে যে কে আগে সেঞ্চুরি করবে। এটাই এখন ভারতবর্ষের পরিস্থিতি।
  • কিছু হলেই হিন্দু-মুসলমান, সাম্প্রদায়িক কথাবার্তা বলছে। পেট্রোপণ্যের দাম বাড়ছে, ডলারের দাম এতো, কেন দৈনন্দিন জীবনের জিনিসের দাম বাড়ছে এর জবাব নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে বিজেপিকে দিতে হবে। আর কোন মিডিয়া, সংবাদপত্র কেউ এই নিয়ে কোন কথা বলছে না, কারণ মুখ খুললেই ওরা (বিজেপি) তাদের পিছনে সিবিআই, ইডি লাগিয়ে দেবে।
  • মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নাকি সংখ্যালঘু তোষণ করেন। কিসের সংখ্যালঘু তোষণ? মোয়াজ্জেম আর ইমামদের ভাতা মুসলিমের ওয়াকফ বোর্ডের টাকা থেকেই দেওয়া হয়, রাজ্যের সাধারণ মানুষের করের টাকায় দেওয়া হয় না। সিপিএমের হার্মাদ থেকে বিজেপির উন্মাদ সকলেই কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের কন্যাশ্রী, সবুজ সাথী, গতিধারা সহ সকল উন্নয়নমূলক প্রকল্পের সুবিধা পাচ্ছে। আমরা জাত পাত ধর্ম বর্ণ দেখে উন্নয়ন করি না।
  • কে কি করবে, কি পরবে, কি বলবে, কি খাবে, কোথা দিয়ে হাঁটবে এখন তো এটাও ঠিক করে দিচ্ছে বিজেপি সরকার। ২০১৯ এ আমাদের সকলকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে লড়তে হবে। আমরা সকলে নেত্রীর দিকনির্দেশ মেনে কাজ করে যেতে হবে।