Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


February 3, 2019

Primary achievements of the Agriculture Department

Primary achievements of the Agriculture Department

Due to the untiring efforts of the Trinamool Congress Government, and the special initiative of Chief Minister Mamata Banerjee in many cases, Bangla has become of the most successful States in the agriculture sector.

The last seven-and-a-half years (when Trinamool has been in power) has been a period of mostly untrammelled success for the farmers of the State.

Let us look at the major successes of Bangla in agriculture during this period:

• Annual farmer income trebled, from Rs 91,000 in 2011 to Rs 2.9 lakh in 2018

• Tax and mutation fee on agricultural land completely waived

• 69 lakh farmers given Kisan Credit Cards

• Bangla Fasal Bima Yojana has provided farmers with free crop insurance

• Old age pension raised to Rs 1,000, and number of beneficiaries increased to 1 lakh

• Awarded Krishi Karman Award from the Centre five years in a row

• Production of foodgrains increased to 179.9 lakh metric tonnes (MT) in financial year (FY) 2017-18 compared to 148.1 lakh MT in FY 2010-11

• Total rice production increased to 158.9 lakh MT in 2017-18 compared to 133.9 lakh MT in 2010-11

• Production of maize increased to 13.3 lakh MT in 2017-18 compared to 3.5 lakh MT in 2010-11

• Production of pulses increased to 4.4 lakh MT in 2017-18 compared to 1.77 lakh MT in 2010-11

• Production of oilseeds increased to 10.5 lakh MT in 2017-18 compared to 7.0 lakh MT in 2010-11

• Agricultural input subsidy worth Rs 2372.56 crore distributed among 58.51 lakh farmers for crop damage due to natural calamities

• Farm implements like tractors, power tillers and pump sets, as well as small implements distributed among 3.7 lakh farmers

• ICT-enabled (information and communication technology) agri-extension project, ‘Matir Katha’ launched to address farm-related problems using hand-held tablet computers and a dedicated portal

• 53.46 lakh Soil Health Cards, with recommendation of use of applications of various nutrients, issued


ফেব্রুয়ারি ৩, ২০১৯

কৃষি দপ্তরের উল্লেখযোগ্য সাফল্য

কৃষি দপ্তরের উল্লেখযোগ্য সাফল্য

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা, সহযোগিতায় ও নির্দেশে তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত রাজ্য সরকার গত সাড়ে ৭ বছরে রাজ্যের কৃষি ও কৃষকদের হাল ফেরাতে প্রচুর পদক্ষেপ নিয়েছে। এর ফলে রাজ্য কৃষিতে দেশের সেরা হয়েছে। দেখে নেওয়া যাক গত সাত বছরে কৃষি দপ্তরের কিছু উল্লেখযোগ্য সাফল্য যার ফলে রাজ্যে কৃষি ও কৃষকদের হাল ফিরেছে।

• রাজ্যে কৃষকদের আয় বেড়েছে তিনগুণেরও বেশী। ২০১১ পর্যন্ত কৃষকদের গড় আয় ছিল ৯১ হাজার টাকা যা ২০১৮ সালে বেড়ে হয়েছে ২.৯লক্ষ টাকা।

• কৃষি জমির খাজনা ও কৃষিজমি হস্তান্তরের ক্ষেত্রে মিউটেশন ফি মুকুব করা হয়েছে। এছাড়া, কৃষিজমির মিউটেশন সম্পূর্ণ অনলাইন করা হয়েছে।

• ৬৯লক্ষ কৃষককে কিষাণ ক্রেডিট কার্ড দেওয়া হয়েছে।

• ‘বাংলা ফসল বীমা যোজনা’র মাধ্যমে কৃষকদের শস্য বীমার প্রিমিয়াম রাজ্য সরকার প্রদান করে।

• বার্ধক্য ভাতার পরিমাণ বাড়িয়ে ১ হাজার টাকা করা হয়েছে। পাশাপাশি উপভোক্তার সংখ্যা বাড়িয়ে ১ লক্ষ করা হয়েছে।

• রাজ্য কৃষিক্ষেত্রে অভূতপূর্ব সাফল্যের জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের কৃষি কর্মন পুরষ্কার পেয়েছে পরপর পাঁচ বছর।

• ২০১০-১১ সালে রাজ্যে খাদ্যশস্য উৎপাদিত হত ১৪৮.১ লক্ষ মেট্রিক টন, যা ২০১৭-১৮ সালে বেড়ে হয়েছে ১৭৯.৯ লক্ষ মেট্রিক টন।

• ২০১০-১১ সালে রাজ্যে ধান উৎপাদিত হত ১৩৩.৯ লক্ষ মেট্রিক টন, যা ২০১৭-১৮ সালে বেড়ে হয়েছে ১৫৮.৯ লক্ষ মেট্রিক টন।

• ২০১০-১১ সালে রাজ্যে ভুট্টা উৎপাদিত হত ৩.৫ লক্ষ মেট্রিক টন, যা ২০১৭-১৮ সালে বেড়ে হয়েছে ১৩.৩ লক্ষ মেট্রিক টন।

• ২০১০-১১ সালে রাজ্যে ডাল উৎপাদিত হত ১.৭৭ লক্ষ মেট্রিক টন, যা ২০১৭-১৮ সালে বেড়ে হয়েছে ৪.৪ লক্ষ মেট্রিক টন।

• ২০১০-১১ সালে রাজ্যে তৈলবীজ উৎপাদিত হত ৭ লক্ষ মেট্রিক টন, যা ২০১৭-১৮ সালে বেড়ে হয়েছে ১০.৫ লক্ষ মেট্রিক টন।

• জাতীয় দুর্যোগের ফলে ফসল ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ায় ৫৮.৫১ লক্ষ কৃষককে কৃষি ইনপুটে ২৩৭২.৫৬ কোটি টাকার ভর্তুকি প্রদান করা হয়েছে।

• ট্র্যাক্টর, পাওয়ার টিলার, পাম্প সেট ও অন্যান্য কৃষি সামগ্রী ৩.৭ লক্ষ কৃষককে বিতরণ করা হয়েছে।

• ট্যাবলেট কম্পিউটার এবং একটি পোর্টালের মাধ্যমে মাটির কথা প্রকল্প শুরু করা হয়েছে কৃষি সংক্রান্ত সমস্যা নিয়ে আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করতে।

• ৫৩.৪৬ লক্ষ সয়েল হেলথ কার্ড বিতরণ করা হয়েছে এবং সঙ্গে বিভিন্ন ফসলের উৎপাদনের ক্ষেত্রে কিছু নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।