Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


October 1, 2018

Domestic work and cookery training for correctional home inmates

Domestic work and cookery training for correctional home inmates

To make the integration of inmates of correctional homes into society after their release easier, the State Technical Education, Training & Skill Development Department has decided to start certain courses for them.

To begin with, inmates of Alipore Women’s Correctional Home are being trained under a course called ‘Domestic Work and Cook’. It was launched on September 24.

Later, courses for teaching how to take care of the elderly and children would also be introduced.

After successful completion of the courses, certificates would be awarded, which can used to apply for jobs. Being from the State Government, the certificates would hold value, according to departmental officials.

Earlier, the department had started an electrician training course at Dum Dum Correctional Home, which is running successfully. The department has plans to introduce these and various other courses in correctional homes across Bangla.

The Correctional Administration Department believes that besides helping to learn new skills and in the process, opening up paths for honest employment later on, the courses keep the inmates’ minds from getting diverted towards harmful activities.


অক্টোবর ১, ২০১৮

ঘর সাজানো, রান্নার প্রশিক্ষণ সংশোধনাগারের আবাসিকদের

ঘর সাজানো, রান্নার প্রশিক্ষণ সংশোধনাগারের আবাসিকদের

বন্দিদশা কাটানোর পরেও সমাজের মূল স্রোতে ফিরতে চান তাঁরা। অথচ তাতে সামাজিক অবহেলার সঙ্গেই বাধা হয়ে দাঁড়ায় অর্থাভাব। এ বার সেই বাধা কাটাতে সংশোধনাগারের আবাসিকদের পাশে দাঁড়াতে চাইছে রাজ্য কারিগরি শিক্ষা দপ্তর।

আলিপুর মহিলা সংশোধনাগারের আবাসিকদের ‘ডোমেস্টিক ওয়ার্ক অ্যান্ড কুক’-এর প্রশিক্ষণ দিতে উদ্যোগী হয়েছে দপ্তর। পরবর্তী সময়ে বয়স্ক এবং শিশুদের দেখাশোনার প্রশিক্ষণ দেওয়ার পরিকল্পনাও রয়েছে বলে কারিগরি শিক্ষা দপ্তর সূত্রের খবর। ২৪শে সেপ্টেম্বর সোমবার থেকে আনুষ্ঠানিক ভাবে এই প্রশিক্ষণ কর্মসূচির সূচনা হয়।

উৎকর্ষ বাংলা প্রকল্পের অধীনে শুরুতে ঘর সাজানো এবং রান্নার প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। স্বাস্থ্যসম্পন্ন ভাবে রান্না ও পরিবেশন করার দিকে বিশেষ নজর দেওয়া হবে। সফল ভাবে প্রশিক্ষণ শেষ করে এর জন্য শংসাপত্রও পাবেন বন্দীরা। যা দেখিয়ে পরে চাকরি পেতে সুবিধে হবে বলেই মত কারিগরি শিক্ষা দপ্তরের কর্তাদের। এই প্রশিক্ষণের আয়োজকদের মতে, শংসাপত্রটি রাজ্য সরকারের দেওয়া বলে তার বিশেষ মূল্য থাকবে।

দপ্তরের মন্ত্রীর বক্তব্য, “সংশোধনাগার থেকে বেরিয়ে আবাসিকরা যেন একটা অর্থপূর্ণ কর্মসংস্থানের সুযোগ পান, সেটাই আমাদের উদ্দেশ্য।”

এর আগে দমদম সংশোধনাগারে ইলেকট্রিশিয়ানের প্রশিক্ষণ দিয়েছিল কারিগরি শিক্ষা দপ্তর। পরবর্তী কালে এই ধরনের প্রশিক্ষণ রাজ্যের অন্য সংশোধনাগারে দিতে চান বলে জানালেন মন্ত্রী। তাঁর বক্তব্য, “এ বিষয়ে সংশোধনাগার মন্ত্রী এবং আধিকারিকদের সঙ্গে কথা হয়েছে। তাঁরাও আগ্রহ দেখিয়েছেন।”

এরই সঙ্গে কারা দপ্তরের অধিকর্তাদের আশা, রান্নাবন্না, ঘর গোছানোর মতো সৃজনশীল কাজের মধ্যে দিন কাটালে আবাসিকদের মনও কিছুটা ভাল থাকবে