Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


July 18, 2018

Bengal ‘driver economy’ for eastern states, says Finance Commission

Bengal ‘driver economy’ for eastern states, says Finance Commission

Stating that Bengal’s economy is a “driver economy” for many other states in the eastern part of the country, N K Singh, Chairman of the 15th Finance Commission, praised the development projects taken up by the state government.

The 15th Finance Commission held a meeting with Chief Minister Mamata Banerjee, Finance Minister Amit Mitra and senior officials of the state government on Tuesday.

After the detailed discussions with the state government, Singh said: “Some of the development initiatives that have been taken up are commendable in multiple ways in terms of job creation, harnessing the comparative advantage that Bengal has in terms of its intellectual capital.” The Chairman also stated that the Finance Commission has recognised that in the past few years the economy of Bengal has made enormous progress in terms of key macro-economic parameters on the Gross Domestic Product (GDP), on improved debt management and on enhancing its own tax revenue. “The state has also made several strides on human development particularly in education and health sector,” he added.

The Commission’s Chairman said: “Some initiatives in which job and employment hubs of a labour intensive nature have been undertaken, particularly the issues of Information and Technology sector and leather industry are the two illustrative cases which were brought to the Commission’s notice.”

He maintained: “There are many virtuous features in what Bengal has done in terms of the tier three governance structure and delegation of substantial powers to the Panchayats and in terms of harnessing the comparative factors’ advantages of Bengal. These are the examples of key initiatives that would not only add to Bengal’s development but would be a pointer of how to harness comparative advantages of other states too.”

He further added: “We agree based on today’s meaningful discussions to continue interaction and dialogue with the state government on what needs to be done in both short and medium term for Bengal to become an important multiplier state in terms of the overall growth picture of the country.” In the same breath, he said that it is a fact that the state’s economy is very strategically placed with three countries bordering it. It is a driver economy for many other states in the east that shares the border with Bengal.


জুলাই ১৮, ২০১৮

অর্থ কমিশনের ভূয়সী প্রশংসা পেল রাজ্য

অর্থ কমিশনের ভূয়সী প্রশংসা পেল রাজ্য

শিক্ষা, স্বাস্থ্যের মতো মানবসম্পদ উন্নয়নের ক্ষেত্রে গত কয়েক বছরে অসামান্য কাজ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার, মঙ্গলবার রাজ্য সরকারের সঙ্গে বৈঠকের পর এই মন্তব্য করেন অর্থ কমিশনের চেয়ারম্যান নন্দকিশোর সিংয়।

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও বলেছেন, ‘‌খুবই সদর্থক আলোচনা হয়েছে। বিভিন্ন ইস্যুতে পুঙ্খানুপুঙ্খ আলোচনা হয়েছে। আমাদের আশা, ঋণের বোঝা কমানোর কথা বিবেচনা করবে কমিশন।’‌

অর্থ কমিশনের চেয়ারম্যান এন কে সিং এদিন বলেছেন, ‘‌আলোচনায় উঠে এসেছে ৫–‌৬টি খুবই গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। গত বেশ কয়েকবছরে অসামান্য উন্নয়নমুখী কাজ হয়েছে পশ্চিমবঙ্গে। বিশেষত স্বাস্থ্য, শিক্ষার সঙ্গে রাজস্ব আদায়ে। জিডিপি হারও অনেক বৃদ্ধি পেয়েছে। যার প্রত্যক্ষ ফলাফলে কর্মসংস্থানের সুযোগ ঘটেছে।’‌ তাঁর কথায়, ‘‌পশ্চিমবঙ্গ যেভাবে এগিয়েছে, কর্মসংস্থান, তথ্য প্রযুক্তি ও চর্মশিল্পে তা অত্যন্ত প্রশংসনীয়। উদাহরণ সৃষ্টি করেছে সারা দেশেই।’‌

তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসার পর গত ৭ বছরে ২ লক্ষ ২৫ হাজার কোটি টাকা সুদ ও আসল–‌সহ ফেরত দিতে হয়েছে কেন্দ্রকে। চলতি আর্থিক বছরেই ৪৬ হাজার কোটি টাকা দিতে হয়েছে।বিপুল ঋণের বোঝা নিয়েও রাজস্ব আদায় দ্বিগুণ করা হয়েছে। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, পানীয় জল, রাস্তা, বিদ্যুৎ, নারী ও শিশু কল্যাণ প্রকল্পে ৯০% রাজ্যবাসী সুবিধা পাচ্ছে। কেন্দ্র আলোচনা ছাড়াই বহু প্রকল্প বন্ধ করে দিয়েছে। পিছিয়ে পড়া অঞ্চলের অনুদান কমিয়ে সমস্যায় ফেলা হয়েছে রাজ্যকে। রাজস্ব ঘাটতি অনুদান, পরিকাঠামো, প্রশাসনিক সংস্কার, জলাভূমি ও বনাঞ্চল রক্ষা এবং পঞ্চায়েত ও পুরসভার উন্নয়নে অনুদান আরও বৃদ্ধির প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে রাজ্যের তরফ থেকে।

এন কে সিং আশ্বাস দিয়েছেন, এর স্থায়ী সমাধান খুঁজে বের করা হবে। ঋণ মকুব বা পুনর্গঠনের ব্যাপারে সুপারিশ করব আমরা।