Bengalathon 2018 to focus on apps for day-to-day needs

State Information Technology and Electronics (IT&E) Minister on Friday launched Bengalathon 2018, inviting software-based solutions from students, technical professionals and common citizens, particularly for the day-to-day problems of common people.

The minister also announced that Chief Minister Mamata Banerjee will lay the foundation stone for her dream Silicon Valley project in New Town on August 13.

“We are looking for app-based solutions in a number of areas that include financial advisory app for senior citizens and game-based app for sensitisation of common people so that they do not get fleeced by fraudsters who pose as bank representatives, know the bank details and siphon money from accounts. We are also looking for an app to have a toto on call,” said a senior official of the IT&E department.

The details for registration along with other details of Bengalathon has been made available in the website of the state IT department and a Facebook page titled Bengalathon has also been introduced.

“Bengalathon” is a technology based competition to recognise innovative ideas that would culminate into path-breaking viable solutions for any of the industry sectors or citizen services and at the same time, provide a platform for them to showcase the innovative skills/ideas of the state resources at the national and international arena. The best solutions will be awarded.

Talking about the Silicon Valley project, the minister said: “We will put up IT&E infrastructure here in such a way that the entire country will look towards this place for solutions in these areas.”

The IT&E department also organised a day-long knowledge based workshop on ‘Internet of Things’ (IOT) involving the academia and the industry to work out a strategy for the state on how to embrace this modern technology, at Biswa Bangla Convention Centre.

‘Synergy’ meet organised to boost MSMEs in Hills

On the heels of the two-day long Hill Business Summit, a “Synergy” meet was organised in Darjeeling by the Micro Small and Medium Enterprises (MSME) department in collaboration with the Confederation of Indian Industries (CII).

Proposals amounting to a sum of around Rs 9 crore have been submitted by different enterprisers in the micro and small sector.

“Synergy”, a one stop destination provides logistical support to MSMEs by providing single point contact; scheme procedures; schemes for startups; upgradation of existing old industries; know how on formation of industrial cooperatives and market access.

Stalls were put up by different departments under the State Government and the Gorkhaland Territorial Administration including MSME, Land, Labour, Power, Fire and Emergency Services, Finance, Tourism, Horticulture. Around 200 entrepreneurs visited.

 

পাহাড়ে অনুষ্ঠিত হল ‘সিনার্জি’ বৈঠক

দার্জিলিং পাহাড়ে উত্পাদিত চকোলেট, নুডলস, ঝাড়ু সহ অন্যান্য সামগ্রী বিশ্ব বাংলা স্টলের পাশাপাশি বিভিন্ন শপিংমলের বিপণনকেন্দ্রে রেখে বিক্রিতে রাজ্য সরকার ব্যবস্থা নেবে। এরই সঙ্গে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ঋণ পেতে যে সমস্ত সমস্যা তৈরি হচ্ছে সেগুলিরও দ্রুত সমাধান করা হবে বলে জানিয়েছেন ক্ষুদ্র ও কুটিরশিল্প বিভাগের ডিরেক্টর।

দার্জিলিঙে স্থানীয় উদ্যোগপতিদের নিয়ে ‘সিনার্জি’ নামে আলোচনা সভায় তিনি জানান, পাহাড়ের ছোটো উদ্যোগপতিদের তৈরি জিনিসপত্র বিক্রিতে ‘এক জানালা’ ব্যবস্থা চালুর চেষ্টা চলছে। এই বৈঠকে ৯ কোটি টাকার লগ্নি প্রস্তাব এসেছে।

ক্ষুদ্র-মাঝারি শিল্পের জন্য ‘এক জানালা’ ব্যবস্থার মাধ্যমে সব পরিষেবা প্রদানই হল সিনার্জি বৈঠকের লক্ষ্য। বিভিন্ন প্রকল্পের প্রক্রিয়া সম্বন্ধে তথ্য থেকে শুরু করে, স্টার্টআপগুলির জন্য কি কি প্রকল্প আছে সেই সম্বন্ধে তথ্য দেওয়া হয় সিনার্জিতে। তাছাড়া, পুরোনো শিল্পের আপগ্রেড, শিল্প সমবায় তথা মার্কেট এক্সেস সম্বন্ধেও জানা যায় এখানে।

পাহাড়ের ‘সিনার্জি’’ বৈঠকে রাজ্য সরকার ও জিটিয়ের বিভিন্ন দপ্তর স্টল দিয়েছিল। উপস্থিত ছিলেন প্রায় ২০০ জন উদ্যোগপতি।

You give us peace, we will give you prosperity: Mamata Banerjee at Hill Business Summit

Chief Minister Mamata Banerjee today inaugurated a two-day industrial meet in Darjeeling. In her speech, she highlighted the potential of the region in the eco-friendly sectors of IT, tourism, horticulture, agro industries, medicinal plants, food processing and education.

There will be sessions from 11 AM to 3 PM tomorrow. The Chief Minister will be present during the sessions on the second day also. Finance Minister Dr Amit Mitra is also present at the meet.

This is for the first time that such a meeting is taking place in the Hills.

Highlights of the Chief Minister’s speech:

It is our proud privilege that we are organising this kind of summit in the Hills for the first time

Darjeeling Hills have a huge potential. Tea, trade, tourism, transport are its mainstay. Horticulture, food processing, skill development and software industry sectors can also be explored.

This kind of initiative (business summit) will go a long way in job creation.

Arrangements were made for this summit within a month. We thank GTA for all the cooperation.

Bengal is going ahead. Bengal means business.

We are No. 1 in India in ease of doing business, e-reforms, e-governance, skill development, agriculture and other sectors.

You give us peace, we will give you prosperity.

Darjeeling lost more than Rs 1000 crore in the strike last year. People of Darjeeling were the biggest sufferers.

Let us make a new beginning. Let us prepare a plan of action. Government will provide all support and cooperation.

The young generation has immense potential. The youth of Darjeeling are very skilled, and can be used in any industry.

Two IT Parks are coming up in Kalimpong and Darjeeling.

We are coming up with proper plan regarding harnessing the horticulture sector – orchids, herbs, even cinchona medicine plant.

An education hub is coming at Kurseong. A new medical college will be set up.

A lot can be done for the development of Darjeeling. We are developing some cottages at Tiger Hill. There are plans for the development of Sandakphu, Kurseong, Mirik and Kalimpong also.

We want to set up industry and folk centre at Mirik. Steel hub, horticulture hub, health hub – a lot can be done in the Hills.

We must ensure Darjeeling is green and clean.

We must shun violence. Political leaders might gain from violence, not the common people.

There is enough scope in tourism sector. In Bengal, we have hill, forest and even sea.

Earlier, Darjeeling was neglected and not taken care of. Now, I come to the Hills every two or three months.

Our government will give you Rs 100 crore for promotional development and job-oriented industries.

Let us compete on the agenda of development.

We want the people of Darjeeling to prosper. I would request the Centre not to play divisive politics in the Hills for the sake of one Lok Sabha seat.

I thank my industry friends for taking interest and coming to the Hills. After the rains yesterday, Kanchenjunga is smiling today.

 

শান্তি থাকলেই সমৃদ্ধি, পাহাড়ে বাণিজ্য সম্মেলনে বললেন মুখ্যমন্ত্রী

আজ দার্জিলিঙে দুদিন ব্যাপী বাণিজ্য সম্মেলনের উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।কাল এই সম্মেলন চলবে সকাল ১১টা থেকে ৩টে পর্যন্ত, উপস্থিত থাকবেন মুখ্যমন্ত্রী।

এই প্রথম পাহাড়ে এরকম একটি সম্মেলন হচ্ছে।

তাঁর বক্তব্যে মুখ্যমন্ত্রী বিভিন্ন ক্ষেত্রে – তথ্যপ্রযুক্তি, পর্যটন, উদ্যানপালন, কৃষি শিল্প, ঔষধি গাছ, খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ ও শিক্ষা – পাহাড়ের বিপুল সম্ভাবনার কথা তুলে ধরেন।

তাঁর বক্তব্যের কিছু অংশঃ-

এই প্রথমবার পাহাড়ে এই ধরনের বাণিজ্য সম্মেলন আয়োজন করতে পেরে আমরা গর্বিত। দার্জিলিংবাসীকে অভিনন্দন জানাই।

দার্জিলিংএ বিনিয়োগের অনেক সম্ভাবনা আছে। চা, বাণিজ্য, পর্যটন, পরিবহণ এগুলোতে তো সুযোগ আছেই। এছাড়া, উদ্যানপালন, খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ, কৃষি, দক্ষতা উন্নয়ন, সফটওয়্যার এগুলোতেও সম্ভাবনা আছে।

এখানকার বেকার যুবকদের কর্মসংস্থানের জন্য এরকম উদ্যোগ খুব প্রয়োজন।

জিটিএ এই সম্মেলন করার আবেদন করেছিল, আমরা তার এক মাসের মধ্যে এই সম্মেলন করেছি। জিটিএ কে ধন্যবাদ সবরকম সহযোগিতা করার জন্য।

বাংলা নিজেকে প্রমাণ করেছে, বাংলা এগিয়ে চলেছে। বাংলা মানেই বাণিজ্য।

শিল্প করার সুবিধা, দক্ষতা বিকাশ, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পে, কৃষিতে, ই-টেন্ডার, ই-রিফর্ম, ই-গভর্নেন্স – সবেতেই আমরা দেশে শীর্ষে।

পাহাড়ে শান্তি থাকলেই সমৃদ্ধি আসবে।

গত বছর ৬ মাসের বন্ধে দার্জিলিঙের ১০০০ কোটি টাকা ক্ষতি হয়েছে। জনগণের সব থেকে বেশী ভোগান্তি হয়।

আসুন নতুন করে শুরু করি, শান্তিতে শুরু করি। আমাদের সরকার সবরকম ভাবে সাহায্য করবে।

দার্জিলিঙের যুব সম্প্রদায়ের দক্ষতা আছে। তাদের মধ্যে প্রচুর সম্ভাবনা আছে। বিভিন্ন শিল্পে তাদের কাজে লাগানো যেতে পারে।

আমরা দার্জিলিং ও কালিম্পঙে দুটি আইটিপার্ক তৈরী করছি।

আমরা কৃষি ও উদ্যানপালনের জন্য পরিকল্পনা করছি। অর্কিড, ফুল, সিঙ্কোনা মেডিসিন প্ল্যান্ট কীভাবে কাজে লাগানো যায়, দেখা হচ্ছে।

কার্শিয়ঙে এডুকেশন হাব তৈরী করা হচ্ছে। নতুন মেডিক্যাল কলেজও তৈরী হচ্ছে।

দার্জিলিঙের অনেক জায়গার আরও উন্নয়ন করা যায়, টাইগার হিলেও কয়েকটা কটেজ তৈরীর পরিকল্পনা আছে। সান্দাকফু, কার্শিয়ং, মিরিক, কালিম্পঙের উন্নয়ন করা যায়।

আমরা মিরিকে শিল্প ও লোককেন্দ্র গড়তে চাইছি। স্টীল হাব, উদ্যানপালন হাব, হেলথ হাব, এখনও অনেক কিছু করা বাকি আছে।

দার্জিলিঙকে স্বচ্ছ এবং সবুজ রাখতে হবে।

এখানে যেন আর কোনও অশান্তি না হয়। এই অশান্তিতে কিছু রাজনৈতিক নেতার ফায়দা হয়, সাধারন মানুষের না।

পর্যটনে আমাদের অনেক সুযোগ আছে। আমাদের পাহাড়, জঙ্গল, সমুদ্র সব আছে।

আগে দার্জিলিঙকে অনেক উপেক্ষা ও অবহেলা করা হত। এখন তো আমি দু-তিন মাসে একবার পাহাড়ে আসি।

দার্জিলিঙে কর্মসংস্থান-মুখী শিল্প গড়ে তোলার জন্য আমাদের সরকার ১০০ কোটি টাকা দেবে।

উন্নয়নের কাজে প্রতিযোগিতা করুন।

দিল্লীর কাছে একটাই অনুরোধ, দার্জিলিংকে সুস্থ থাকতে দিন, দার্জিলিংকে টুকরো করতে কাউকে সাহায্য করবেন না। রাজনীতির জন্য দার্জিলিংকে ভাগ হতে দেব না।

সকল শিল্পপতিকে ধন্যবাদ এখানে আসার জন্য, গতকাল শিলাবৃষ্টির পরও আজ কাঞ্চনজঙ্ঘা হাসছে।

 

 

IT infrastructure in Bengal has come a long way

Under the leadership of Chief Minister Mamata Banerjee, the information technology (IT) infrastructure in Bengal has improved a lot. Thus, the Trinamool Congress Government has also ensured a lot of employment opportunities.

A crucial aspect of IT infrastructure is the creation of IT parks, where companies are clustered together to enable locational, functional and strategic advantages.

In recent times, 12 more IT parks have been added, notching the total up to 16. The 12 new ones are located in Rajarhat, Durgapur (Phase 2), Asansol, Purulia, Barjora, Siliguri (Phase 2), Kharagpur, Kalyani, Howrah, Haldia, Taratala (in Kolkata) and Bolpur.

There is space to house numerous companies in these parks. Many applications have been received by the State Government in this regard, and processing is being done.

Information for booking space at the IT parks can be had the following ways:

WhatsApp: +91 9830333943
Email: [email protected]
Visit for online booking: www.webel-india.com

The government is also creating a lot of opportunities for startups, through funding and enabling the providing of expertise by people who are experts in their fields.

IT major Infosys has announced recently that it is going to invest Rs 100 crore to set up an office in Rajarhat, which would employ 1,000 people.

Regarding IT, it should be mentioned that Bengal is one of the leaders in India in terms of implementing IT in the functioning of the administration, and the state has been awarded by the Central Government for its superior performance.

Various departments and schemes have mobile apps for customer interaction. All departments and schemes have websites of their own, which are regularly updated.

Many of the schemes are now completely IT-enabled, including the internationally-accredited Kanyashree Scheme, and the functioning of panchayat system is completely IT-enabled, which has been specially recognised by the World Bank.

বাংলার তথ্য প্রযুক্তি পরিকাঠামো এখন উন্নততর

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রচেষ্টায় রাজ্যের তথ্য প্রযুক্তি পরিকাঠামো এখন উন্নততর। এর ফলে সরকার দিতে পেরেছে অনেক কর্মসংস্থান।এই পরিকাঠামো উন্নয়নের একটি উল্লেখযোগ্য ভাগ হল তথ্য প্রযুক্তি পার্ক তৈরি যেখানে তথ্য প্রযুক্তি সংস্থাগুলি একত্রে এসে একে ওপরের থেকে নানারকম সহায়তা নিতে পারবে।

ইতিমধ্যে ১২টি তথ্য প্রযুক্তি পার্ক সংযুক্ত করা হয়েছে, সব মিলিয়ে সংখ্যাটি দাঁড়ালো ১৬। এই ১২টি পার্ক আছে রাজারহাট, দুর্গাপুর (ফেস – ২), আসানসোল, পুরুলিয়া, বড়জোড়া, শিলিগুড়ি (ফেস – ২), খড়গপুর, কল্যাণী, হাওড়া, হলদিয়া, তারাতলা (কলকাতায়) এবং বোলপুরে।

এই পার্কগুলিতে প্রচুর কোম্পানি আছে। রাজ্য সরকার এখান থেকে প্রচুর অ্যাপলিকেশন পেয়েছে যা এই পার্কগুলিতে তৈরি হয়েছে।এই তথ্য প্রযুক্তি পার্কগুলিতে বুকিং-এর ব্যপারে জানতে হলে নিম্নলিখিত পদ্ধতিতে যোগাযোগ করা যাবে।

হোয়াটস অ্যাপ- +৯১ ৯৮৩০৩৩৩৯৪৩
ই-মেল- [email protected]
অনলাইনে বুক করতে হলে, যেতে হবে এই ওয়েবসাইটে- www.webel-india.com

স্টার্ট-আপেও অনেক সহায়তা করছে রাজ্য সরকার, ঋণের বন্দোবস্ত করার পাশাপাশি ব্যবসার বিভিন্ন ক্ষেত্রের বিশেষজ্ঞদের থেকে সবরকম অভিজ্ঞতা জানার ব্যবস্থাও করছে।তথ্য প্রযুক্তির বৃহৎ কোম্পানি ইনফোসিস জানিয়েছে শীঘ্রই তারা ১০০ কোটি টাকা লগ্নি করবে রাজারহাটে, যেখানে কর্মসংস্থান হবে প্রায় ১০০০ লোকের।

প্রশাসনিক কাজে তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহারের ক্ষেত্রে বাংলা দেশের মধ্যে অন্যতম অগ্রণী। এর জন্য কেন্দ্রীয় সরকারের পুরস্কারও পেয়েছে রাজ্য।

রাজ্যবাসীর সুবিধার্থে রাজ্য সরকারের অনেক দপ্তরের অনেক পরিষেবাকে পৌঁছে দেওয়া হচ্ছে অ্যাপের মাধ্যমে। প্রতিটি দপ্তরের রয়েছে নিজস্ব ওয়েবসাইট, যা নিয়মিত আপডেট করা হয়।রাজ্যবাসীর অনেক প্রকল্প এখন পুরোপুরি তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর, এমনকি বিশ্বজয়ী কন্যাশ্রীও। এখন পঞ্চায়েত পরিচালনাও হয় সম্পূর্ণ তথ্য প্রযুক্তি নির্ভর করে। এই বিষয়টির জন্য বিশ্ব ব্যাঙ্কের বিশেষ স্বীকৃতি পেয়েছে রাজ্য।

Source: Millennium Post