Latest Newsসাম্প্রতিক খবর


November 3, 2018

State Govt carrying out communal harmony campaign

State Govt carrying out communal harmony campaign

The Bangla Government has started a three-phase State-wide campaign called ‘Ekotai Sampriti’ to spread the message of communal harmony and create awareness on its wide-ranging developmental projects.

The first phase is being held from November 2 to 4 in Kolkata (at Deshapriya Park) and in the districts of Hooghly (in Bhadreswar), Nadia, Howrah (at Sarat Sadan in Howrah Maidan) and Purulia.

The next two phases of the campaign will be held after Kali Puja – from November 16 to 18 in the districts of Purba Medinipur, Cooch Behar, Jhargram, Alipurduar (in Madarihat), Uttar Dinajpur, Dakshin Dinajpur, Purba Bardhaman and Paschim Bardhaman, and from November 23 to 25 in Paschim Medinipur, Bankura, Malda, Jalpaiguri (in Balakoba), Kalimpong, Murshidabad, North 24 Parganas (in Naihati), Birbhum and Darjeeling (in Siliguri).

As part of the campaign, a digital tableau and two normal tableaus, with the caption ‘Ekotai Sampriti’ on them, are moving around places to spread the message of communal harmony and create awareness the developmental schemes and projects of the Trinamool Congress Government.

Several cultural programmes are also being held as part of the campaign. More than 30,000 folk artistes are taking part in the event, being organised at 5,000 different points across the State.

There are also exhibitions on handicraft goods manufactured by members of self-help groups (SHG). There will be various competitions for school-goers as well.

It may be said that Chief Minister Mamata Banerjee has always spread the message of communal harmony and peace in congruity with the tradition and culture of Bangla.

Source: Millennium Post


নভেম্বর ৩, ২০১৮

'একতাই সম্প্রীতি' কর্মসূচী রাজ্য সরকারের

'একতাই সম্প্রীতি' কর্মসূচী রাজ্য সরকারের

রাজ্য ব্যাপী তিন পর্যায়ের একতাই সম্প্রীতি নামক এক সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি কর্মসূচী শুরু করেছে রাজ্য সরকার। এর পাশাপাশি এই উৎসবে সরকারের উন্নয়নমূলক প্রকল্পগুলিরও প্রচার চলবে।

প্রথম পর্যায়ে এই উৎসব পালিত হচ্ছে কলকাতার দেশপ্রিয় পার্কে ২রা নভেম্বরের থেকে ৪ঠা নভেম্বর। হুগলী জেলার ভদ্রেশরে, নদীয়া, হাওড়া জেলায় হাওড়া ময়দানের শরৎ সদনে এবং পুরুলিয়াতে।

আগামী দুই পর্যায় অনুষ্ঠিত হবে কালী পুজোর পর। নভেম্বরের ১৬ই থেকে ১৮ই উদযাপিত হবে দ্বিতীয় পর্যায়ে পূর্ব মেদিনীপুর, কোচবিহার, ঝাড়গ্রাম, আলিপুরদুয়ার (মাদারিহাটে), উত্তর দিনাজপুর, দক্ষিণ দিনাজপুর, পূর্ব বর্ধমান, পশ্চিম বর্ধমানে।

তৃতীয় পর্যায় অনুষ্ঠিত হবে ২৩ থেকে ২৫শে নভেম্বর। পশ্চিম মেদিনীপুর, বাঁকুড়া, মালদা, জলপাইগুড়ির বলাকোবায়, কালিম্পং, মুর্শিদাবাদ, উত্তর ২৪ পরগনার নৈহাটি, বীরভূম এবং দার্জিলিং জেলার শিলিগুড়িতে।

এই কর্মসূচীর অংশ হিসেবে একতাই সম্প্রীতি লেখা একটি ডিজিটাল ও দুটি সাধারন ট্যাবলো এলাকায় ঘোরানো হচ্ছে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বার্তা ছড়াতে। পাশাপাশি তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত রাজ্য সরকারের নেওয়া উন্নয়নমূলক কর্মসূচীর বিষয়ে জনগণকে অবগত করতে।এই উৎসবের অংশ হিসেবে বেশকিছু সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান করা হবে। এই কর্মসূচীতে ৩০০০ লোকশিল্পী অংশ নেবে। রাজ্যের ৫০০০টি জায়গায় এই অনুষ্ঠান হবে।স্বনির্ভর গোষ্ঠীর তৈরী হাতের কাজের সামগ্রীর পসারও থাকবে এখানে। স্কুল পড়ুয়াদের জন্য থাকছে একগুচ্ছ প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার সুযোগ।

প্রসঙ্গত, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সব সময় সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বার্তা দিয়ে থাকেন সমস্ত রাজ্যবাসীকে। এবং শান্তি ও সম্প্রীতি বাংলার চিরন্তন ঐতিহ্য।