Latest News

November 8, 2017

20 things Mamata Banerjee said on DeMonetisation anniversary

20 things Mamata Banerjee said on DeMonetisation anniversary

Bengal Chief Minister Mamata Banerjee today addressed a press conference on the occasion of demonetisation anniversary. Attacking the Centre over the decision of demonetisation, and the resultant effect on economy, she demanded a thorough investigation into the issue.

The CM said the only party to benefit from demonetisation is the ruling party at the Centre. She alleged this was a conspiracy to convert black money into white by the same party.

Here are 20 things Mamata Banerjee said on demonetisation anniversary:

1.    Centre must give an explanation to the country as to why they demolished and destroyed the economy. What was the motive behind this decision? This Government is busy giving bhashans, not explanations.

2.    I may not be an economist, but several noted economists have panned demonetisation. Many former finance ministers of India called it a disaster.

3.    Former Prime Minister Manmohan Singh called demonetisation ‘organised loot’. A former Governor of RBI warned of negative impact. Arun Shourie, their own party leader, called it money laundering. Former finance minister of BJP, Yashwant Sinha, called it a disaster. Even, P Chidambaram said so.

4.    On the very first day itself, I had warned of a recession, through a series of tweets. Country has already lost GDP worth nearly Rs 3 lakh crore.

5.    Was demonetisation done without any planning, or was it a well thought-out conspiracy to convert black money into white?

6.    Demonetisation had failed in every country – Soviet Russia, Nigeria, Lybia – where it was tried. This was a Tughlaqi decision.

7.    More than 75,000 industrialists were forced to leave India and settle abroad because of the prevailing situation. Growth in investments also plummeted during this period.

8.    Big market hubs in the country, like Barabazar in Kolkata, witnessed 80-90% fall in business. More than 1 lakh jobs were lost in Surat. Demonetisation and GST were double disasters for the country.

9.    The Centre has failed to bring back black money from abroad. There must be a thorough investigation. What was the need for demonetisation?

10. In Bengal, we have stressed on digitisation and e-governance. We have doubled our revenues. All payments have been digitised. We have even received the Golden Peacock award for e-governnace.

11. The company Alibaba is under investigation (class action lawsuit) in China. But it is being allowed to do business in India. This is astounding.

12. Truth will always prevail. More than 100 people lost their lives. About 12,500 farmers committed suicide. The textile sector, unorganised sector and even the manufacturing sector are down. The young generation is the biggest loser.

13. Demonetisation was a bad political decision. It was also bad for governance. They have been continually shifting goalposts.

14. The ruling party at Centre hardly does any action; the PM gives only bhashan. The ministers are busy doing party work. There is no governance. Only the ruling party profited from demonetisation.

15. They said three things while announcing demonetisation. Black money will be retrieved, terrorism will be prevented and fake currency circulation will be reduced. They have failed on all fronts.

16. BJP is morally defeated in Gujarat. If they have done good work, people would naturally support them. But everyone – from the PM to the ministers, central agencies and forces – have been packed off to the State. This is a sign of moral defeat.

17. The ruling party is destroying institutions; from the RBI to the Planning Commission – none has been spared. There is no governance, only attacks on federalism.

18. Why is the media afraid? A section of the media only questions the Opposition. When it comes to the ruling party, they become His Master’s Voice.

19. All Opposition parties are protesting against demonetisation today. We have ideological differences, but we will continue to fight together with a common agenda.

20. The ruling party has lost all credibility and accountability. They have lost the confidence of the people. BJP only knows hooliganism. But we serve the people.


নোটবাতিলের বর্ষপূর্তিতে কি বললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়? দেখে নিন

নোটবাতিলের বর্ষপূর্তি উপলক্ষে আজ নবান্নে সাংবাদিক বৈঠক করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ওনার বক্তব্যের বিশেষ কিছু অংশ:

১. শাসকদল ওদের নিজেদের সিদ্ধান্ত সমর্থন করবে সেটাই obvious, কারণ এটাই তাদের রাজনৈতিক ভিশন। এই সিদ্ধান্ত শাসকদলের, বিরোধীদের নয়। দেশের বর্তমান অর্থনৈতিক অচলাবস্থার জন্য ওরা দায়ী। কিন্তু  দেশের মানুষকে explanation  দেওয়ার বদলে ওরা ভাষণ দিচ্ছে।

২. আমি কোনও economic expert নই। প্রাক্তন অর্থমন্ত্রীরা সহ অনেক অর্থনীতিবিদ বলেছেন এটি একটা disaster।

৩. প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং একে ‘সংগঠিত লুঠ’ বলেছেন। রিজার্ভ ব্যাঙ্কের প্রাক্তন গভর্নর বলেছেন, ‘এটা গরীব মানুষের ওপর নেগেটিভ ইমপ্যাক্ট’। অরুণ শৌরি বলেছেন এটা ‘একটা Money Laundering’। বিজেপির প্রাক্তন অর্থমন্ত্রী যশবন্ত সিনহা সহ পি চিদাম্বরম সকলেই একে ‘disaster’ বলেছেন।

৪. নোটবাতিল ঘোষণার প্রথম দিনেই আমি টুইট করে বলেছিলাম এই সিদ্ধান্ত দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা ধ্বংস করে দেবে। গরীব, মধ্যবিত্ত ও সাধারণ মানুষ সবচেয়ে বেশি suffer করবে। ৩ লক্ষ কোটি টাকার বেশি  GDP loss হয়েছে।  একটা  রাজনৈতিক সিদ্ধান্তের  জন্য সাধারণ মানুষ কেন suffer করবে?

৫.  কোন পরিকল্পনা না করেই কি এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে? নাকি কালো টাকাকে সাদা করার জন্য এটা একটা  চক্রান্ত?

৬. সব  দেশে এই নোটবাতিলের সিদ্ধান্ত ব্যর্থ  হয়েছে – সোভিয়েত রাশিয়া, নাইজেরিয়া, লিবিয়া – যখনই চেষ্টা করেছে, বিফল হয়েছে। এটা একটা  তুঘলকি সিদ্ধান্ত।

৭. এই পরিস্থিতির জন্য ৭৫০০০ শিল্পপতি ভারতবর্ষ ছেড়ে বিদেশে যেতে বাধ্য হয়েছেন। আমি জানি না এই সিদ্ধান্তের মাধ্যমে কারা উপকৃত হয়েছে। বিনিয়োগের সম্ভাবনা কমে গেছে এই সময়ে।

৮. বড়বাজাররের শ্রমিকদের মতে তাদের ব্যবসার ৮০-৯০ শতাংশ ক্ষতিগ্রস্ত। সুরাতে ১ লক্ষেরও বেশি মানুষ কর্মহীন হয়েছেন। প্রথমে নোটবাতিল, তারপর জিএসটি একসাথে ২ টো  বিপর্যয় হয়েছে দেশে।

৯. কেন্দ্র বিদেশ থেকে কালো টাকা ফিরিয়ে আনতে ব্যর্থ। নোট বাতিলের যথাযথ তদন্ত হওয়া দরকার। কি প্রয়োজন ছিল এই সিদ্ধান্তের?

১০. বাংলায় ডিজিটাইজেশন ও ই-গভর্ন্যান্স এর ওপর জোর দেওয়া হয়েছে। আমরা আমাদের রাজস্ব দ্বিগুন করেছি।  ই-গভর্ন্যান্স এর জন্য গোল্ডেন পিকক অ্যাওয়ার্ড পেয়েছে বাংলা।

১১। চীনের সরকার নিজেরাই যখন আলিবাবা কোম্পানিটির ব্যাপারে তদন্ত করছে, তখন আমাদের দেশে সব রকম ব্যবসার সুযোগ তারা পায় কী করে? এমনকী নিউ ইয়র্কেও এদের নামে একটি মামলা (ক্লাস অ্যাকশন স্যুট) আছে, তাহলে ভারতে এটা কী হচ্ছে?

১২। মানুষ ভুগছেন, কৃষকরা ভুগছেন, ১০০-র বেশী মানুষ মারা গেছেন, ১২,৫০০ কৃষক আত্মহত্যা করেছেন, ৫০ লক্ষের বেশী চাকুরিজিবী কাজ হারিয়েছেন, টেক্সটাইল শিল্প থেকে অসংগঠিত ক্ষেত্র এমনকী উৎপাদনকারী শিল্প সংস্থারা বলছে যে আগামী দু বছর তারা কোন নতুন চাকরী দিতে পারবে না। তাঁর মানে সবচেয়ে বড় ক্ষতি হয়েছে তরুণ প্রজন্মের।

১৩। এই সিদ্ধান্ত শুধু সরকারের জন্যে খারাপ নয়, এটা পুরো প্রশাসনিক ভুল। জি এস টি-র ব্যাপারেও এক ভুল, বলেছিলাম তাড়াহুড়ো করবেন না, তাও করল। আরে কত চেঞ্জ করবে, করতে করতে তো গোলপোস্ট পালটে যাবে, তখন কী করবে? গোলপোস্ট গেল তো সব গেল, গোল করবে কী করে?

১৪। এই সরকার মানুষের জন্য কাজ না করে ভাষণ দিচ্ছে, আর প্রত্যেকটা রাজ্যে গিয়ে রাজনীতি নিয়ে কথা বলছে। ধর্ম নিয়ে কথা রটাচ্ছে, যাতে নিজেদের দল ভারী হয়। আর মাঝে মাঝে মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে।

১৫। এই নোটবন্দি নিয়ে ওরা কি বলেছিল? সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপ বন্ধ হবে বলেছিল, হল না। দুই, কালো টাকা ধরা পড়ে যাবে বলেছিল, হল না। তিন, নকল টাকা ধরা পড়বে বলেছিল, হল না।

১৬। গুজরাতে নির্বাচনের জন্য সব মন্ত্রীরা, মায় প্রধানমন্ত্রী পর্যন্ত কেন পড়ে আছেন। গুজরাতের মানুষ যদি মনে করেন যে ওরা ভালো কাজ করেছে তাহলে সেখানে এত পড়ে থাকতে হবে কেন? এর থেকে আমার মনে হয় যে গুজরাতে বিজেপি-র নৈতিক পরাজয় হয়েছে।

১৭. শাসক দল সব ইন্সটিটিউশনগুলো ধ্বংস করে দিচ্ছে। রিজার্ভ ব্যাঙ্ক থেকে প্ল্যানিং কমিশন সব ধ্বংস করে দিচ্ছে। কোন গভর্ন্যান্স নেই, শুধু যুক্তরাষ্ট্রীয় পরিকাঠামোকে আক্রমণ করছে।

১৮. সংবাদমাধ্যম কেন ভয় পাচ্ছে? সংবাদমাধ্যমের একাংশ শুধু বিরোধীদের প্রশ্ন করে। আমি জানি ওরা সংবাদমাধ্যমকে pressurise করে, কিন্তু মিডিয়ার উচিত নিজেদের ভূমিকা পালন করা।

১৯. আজ সব বিরোধী দল এই নোট বাতিলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করছে। আমাদের মধ্যে আদর্শগত পার্থক্য থাকতে পারে কিন্তু আমাদের মধ্যে কিছু common agenda থাকে। জনসাধারণের স্বার্থে আমরা একসঙ্গে লড়াই করি।

২০. শাসক দল ওদের credibility ও accountability হারিয়ে ফেলেছে। মানুষ ওদের ওপর থেকে বিশ্বাস হারিয়েছে। বিজেপি শুধু hooliganism করে কিন্তু আমরা মানুষের জন্য কাজ করি।